ফের ভাঙন গেরুয়া শিবিরে, দলবেঁধে তৃনমুলে যোগ দিলেন নবদ্বীপের কয়েকশো বিজেপি কর্মী!

বর্তমানে বাংলায় তথা দেশের মধ্যে স-ন্ত্রা-সে-র ঘোর রাজত্ব চালাচ্ছে করোনা। প্রতিদিনই মৃ-ত্যু হচ্ছে অনেক মানুষের। মৃ-ত্যুভয়কে বিভীষিকাময় স-ঙ্গী করে নিরন্তর জীবনের সাথে লড়াই করে চলেছে মানুষজন। সকলেই স্বপ্নয়য় চোখে চেয়ে রয়েছে সেই স্বাভাবিক দিনগুলি ফেরার অপেক্ষায়। এইসময় দেশের মানুষের উচিৎ সকলের সাথে সকলের ঐক্যবদ্ধভাবে মিলেমিশে এই কঠিন পরিস্থিতির বিরুদ্ধে লড়াই করা।

সেইসাথে রাজনৈতিক নেতাদের‌ও উচিৎ এই স-ঙ্ক-ট-ম-য় পরিস্থিতির মধ্যে সকলের কাজের মধ্যে সমন্বয় সাধন করা। কিন্তু তা আর হচ্ছে কোথায় ? এই আ-শ-ঙ্কা-র ঘনঘটার মধ্যেও অব্যাহত রাজনৈতিক দলগুলির একে অপরকে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ির নোংরা খেলা। এখনও আমফানের ক্ষ-তিপূরণ, রেশন দূ-র্নী-তি থেকে শুরু করে করোনার আ-ব-হে রাজ্যের মানুষের সুরক্ষার ব্যবস্থা সবকিছু নিয়েই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা।

আরও পড়ুন – বাথটবে শুয়ে লাস্যময়ী নুসরত, মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল সেই লুকের ছবি, রইলো সেই ছবি

আগামী ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচন কে পাখির চোখ করে কর্মসূচি প্রস্তুত করছে তৃণমূল এবং বিজেপি। কিন্তু এই নির্বাচনের আগেই বিরাট ধাক্কা খেলো রাজ্য বিজেপি নের্তৃত্ব। রবিবার সন্ধ্যায় নদীয়ার নবদ্বীপ ব্লকের মালিতাপাড়া, গদখালী এলাকায় তৃণমূল আয়োজিত এক সভায় বিজেপি ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন শতাধিক বিজেপি কর্মী।

আরও পড়ুন – মার্চ মাস থেকে আকাশছোঁয়া বিক্রি বেড়েছে ক’নড’ম, সে’ক্স টয় থেকে শুরু করে গ’র্ভ নিরোধক পিলের!

এর আগেও অনেক জায়গাতেই বিজেপির সংস্রব ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন বহু বিজেপি কর্মী। এবার নবদ্বীপেও ঘটলো এই ঘটনার‌ই পুনরাবৃত্তি। হাতে তৃণমূলের পতাকা তুলে নিয়ে বিজেপি কর্মী রতন চৌধুরী ক্ষোভের সুরে বলেছেন যে, “এখানে প্রায় সবাই কৃষিকাজের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করেন। বিজেপিতে গিয়েছিলাম মনে অনেক আশা-ভরসা নিয়ে।

আরও পড়ুন – বদলে গেলো গ্যাস বুকিং এর নিয়ম, এবার চালু হচ্ছে OTP , এছাড়াও বদলাচ্ছে বেশ কিছু নিয়ম

কিন্তু বাস্তবে দেখলাম এই বিজেপি দল রাজ্যে ক্রমশ‌ই রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি করে চলেছে। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় আমরা বাংলায় এক যুগান্তকারী পরিবর্তনে অংশ নিতে তৃণমূলে এলাম।” এই ঘটনা স্বভাবত‌ই চিন্তা বাড়িয়েছে রাজ্য বিজেপি নের্তৃত্বের।

এখানে আপনার মতামত জানান