নিউজদেশপলিটিক্স

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কি কমেছে প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা?

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনার ভয়াবহ সন্ত্রাস সারা দেশজুড়ে ব্যাপক তান্ডব চালাচ্ছে। ইতিমধ্যেই বহু মানুষের মৃত্যু ঘটেছে সারাদেশ ব্যাপী এই ভয়াবহ ভাইরাস এর কবলে পড়ে। বহু সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে রাজনৈতিক দলগুলি কেন্দ্রীয় সরকারের উপর দায় চাপিয়ে দিয়েছে যে এই ভাইরাসের মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়েছে মোদী সরকার। নির্বাচনে জিতে প্রথমবার সরকার গঠন করার সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা ছিলো, সেই জনপ্রিয়তার জোয়ারে অনেকটাই ভাটা দেখা দিয়েছে এই করোনার আবহে।

অনেকেই বলছেন প্রধানমন্ত্রীর সেই আসন অনেকটাই সমর্থন হারিয়েছে। একটি সমীক্ষায় ধরা পড়েছে যে বর্তমানে বিভিন্ন ঘটনার দরুন প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা কমলেও তা টিকে রয়েছে ৭৪% তে। গত জানুয়ারি মাসে বলা হয়েছিলো যে প্রধানমন্ত্রীর সুদক্ষ নেতৃত্বে ভারত করোনার মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু এই ঘোষণার পরেই আবার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে সারা ভারতের মাটিতে।

আরও পড়ুন-“হলদিয়ায় তৃণমূলের হার হয়েছে কেন?”- দুর্গাচকের মঞ্চ থেকে কুণাল ঘোষ দিলেন কড়া সতর্কীকরণ বার্তা।

আবার ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে জারি হয়েছে লকডাউন।এক মার্কিন সংস্থা তাদের তথ্য মারফত জানিয়েছে যে, গত ২০২০ সালের ৩০ শে মে থেকে চলতি বছরের ৩০ শে মে পর্যন্ত একবছরে মোদীর জনপ্রিয়তা হ্রাস পেয়ে হয়েছে ৬৩% যা আগে ছিলো ৮২%।রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন বেশকিছু বিচারক ছিলেন যারা প্রকাশ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত কর্মকাণ্ডের প্রতি সমর্থন জানাতেন। বর্তমানে বেশ কিছু বিচারপতি রয়েছে যাদের প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করেছিলেন।

আরও পড়ুন-উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে ১০০ টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার ঘোষণা করলো আসাউদ্দিনের মিম।

তাই এই সমস্ত বিচারপতিদের উপরে গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষজন ভরসা রাখতে পারছেন না। বর্তমানে বিজেপির নির্বাচনী প্রচারে আগের তুলনায় দ্বিগুণ টাকা খরচ করছে , এই খরচে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমর্থকরা যথেষ্ট টাকা ঢালতে পারছেন না। এমনিতেই ২০১৯ এর ইলেক্টোরাল বন্ড স্কিম অনুযায়ী বিজেপির ঝুলিতে ঢুকেছে ৭৫০ কোটি টাকা।কিন্তু বর্তমানে করোনা আবহে রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক পরিবেশ যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হলেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা ততটা হ্রাস পায়নি যতটা বিরোধী দলগুলি প্রদর্শন করছে।

আরও পড়ুন-আলাদা রাজ্যের দাবী শুনে আজ রাজভবনে প্রত্যাবর্তন করছেন রাজ্যপাল

বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশে বিজেপির গড় যথেষ্ট প্রতিকূল পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছে। যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশের মাটিতে বাড়ছে ক্ষোভ।তাই এই জনবিক্ষোভের কথা আঁচ করেই উত্তরপ্রদেশের মাটিতে লড়াইয়ের কৌশল সাজাচ্ছে বিজেপি। এদিকে সারা দেশে করোনার আবহ এবং সেই সাথে কৃষক বিদ্রোহের ব্যাপকতা প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তায় অনেকটাই ভাটা ফেলে দিয়েছে।

তাই বাংলার মাটিতে এবারে প্রধানমন্ত্রী নিজে বারবার প্রচারে এলেও বাংলার বেশীরভাগ মানুষ ভোটটা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

Related Articles

Back to top button