নিউজ

দারুন সুখবর! 60 টাকায় পাওয়া যাবে পেট্রোল! পেট্রোল-ডিজেলের দাম আরো কমানোর আশ্বাস কেন্দ্রের! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-যেভাবে প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম তাতে এই মূল্যবৃদ্ধির চক্করে পড়ে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষেরা ।যদিও মানুষের ক্ষোভ টের পেয়ে কেন্দ্রীয় সরকার পেট্রোল প্রতি লিটার 5 টাকা এবং ডিজেলের প্রতি লিটার 10 টাকা দাম কমিয়েছে। কিন্তু এটা কখনোই স্থায়ী সমাধান হতে পারে না। রাজ্য সরকার ও পর্যাপ্ত পরিমাণে ভ্যাট কমিয়ে দিয়েছে জ্বালানির উপর থেকে।

এমতাবস্থায় দাঁড়িয়ে পুনরায় আগামী দিনে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম নতুন করে বাড়বে না তার কোন নিশ্চয়তা নেই ।তাই এবার স্থায়ী সমাধানের দিকে পা বাড়ালো কেন্দ্রীয় সরকার।কেন্দ্রীয় সরকার এখন ফ্লেক্স ফুয়েল এর ওপর বেশি জোর দিচ্ছে।

প্রথমে আপনাকে জেনে নিতে হবে কি এই ফ্লেক্স ফুয়েল ।ফ্লেক্স ফুয়েল বা ফ্লেক্স ইঞ্জিন এর নাম হয়তো অনেকেই শুনে থাকবেন। এটিও একটি জ্বালানি ব্যবস্থা যেটি অনেককিছুর সংমিশ্রনে তৈরী করা হয়। এই ফ্লেক্স ফুয়েল টি মূলত গ্যাসোলিন এর সাথে ইথানল বা মিথানল এর সংমিশ্রন থেকে তৈরী করা হয়। এমনকি ফ্লেক্স ইঞ্জিন তৈরী করতে খরচ হয় EV র থেকেও অনেক কম। কাজেই এই ব্যবস্থার ওপরই বর্তমানে সরকার বিশেষ জোর দিচ্ছে।

কেন্দ্রীয় পরিবহনমন্ত্রী নীতিন গড়করি জানিয়েছেন যে প্রতিটি গাড়িতে আগামী দু এক মাসের মধ্যে ফ্লেক্সফিল্ড যাতে ব্যবহার করা যেতে পারে তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে । পেট্রোল ইঞ্জিনের পাশাপাশি জাতীয় ব্যবহার করা যেতে পারে সেই বিষয়ে নজর দিচ্ছে তারা । বিদেশে বিভিন্ন গাড়িতে এই ধরনের ডবল ইঞ্জিনের ব্যবস্থা থেকে থাকে । যেহেতু ইথানল পেট্রোল এর তুলনায় অনেক সহজলভ্য এর দাম ভারতীয় বাজারে কম হবে । প্রায় ৪০ শতাংশ কমে যাবে পেট্রোলের দাম এবং প্রতি লিটার এটি পাওয়া যেতে পারে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা দরে। যার ফলে সাধারণ মানুষের সুবিধা হবে অনেকখানি।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়কড়ি জানিয়েছেন, গাড়িতে পেট্রল ইঞ্জিনের পাশাপাশি ফ্লেক্স-ফুয়েল ইঞ্জিনও থাকবে যার ফলে ১০০ শতাংশ ইথানল ব্যবহার করেও গাড়ি চালানো যাবে। ব্রাজিল, কানাডা এবং আমেরিকার অটোমোবাইল সংস্থাগুলি ইতিমধ্যেই ফ্লেক্স-ফুয়েল ইঞ্জিন তৈরি করছে যার ফলে গ্রাহকেরা ১০০ শতাংশ পেট্রল বা ১০০ শতাংশ বায়ো-ইথানল ব্যবহার করে গাড়ি চালাতে পারবেন। পারেন। সাধারণত পেট্রোল চালিত গাড়িতে নিজে ইঞ্জিন অয়েল থাকে সেটি আলাদাভাবে থাকে কিন্তু ফ্লেক্স ফুয়েল এর ক্ষেত্রে আলাদাভাবে কোনরকম ট্যাংক তৈরি করার প্রয়োজন নেই একই সাথে সাথে অর্থাৎ জ্বালানির সাথে রাখা যেতে পারে বলেও দাবি অনেকে

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button