নিউজ

সমস্ত মহিলাদের জন্য দুর্দান্ত সুখবর, লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের নতুন নিয়ম, জানালো মহিলা ও শিশু উন্নয়ন দপ্তর!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- সাধারণ মানুষের মনে প্রশ্ন ছিল যে যাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নেই তারা কি লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে না? তবে তাদের জন্য এসেছে সুখবর সম্প্রতি রাজ্য সরকারের তরফ থেকে নতুন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে যে নির্দেশিকা বিস্তারিত ভাবে জানানো হয়েছে যে যাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নেই তারা কিভাবে এই প্রকল্পের সুযোগ-সুবিধা নিতে পারবেন আসুন জেনে নেই সেটি কি ।।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় রাজ্যজুড়ে আর কিছুদিনের মধ্যে চালু হতে চলেছে দ দুয়ারে সরকার । এই ক্যাম্পের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো অন্যান্য বারের তুলনায় এবারে সংযুক্ত করা হয়েছে একই নতুন প্রকল্প যার নাম লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প । সমাজে পিছিয়ে পড়া নারী সমাজকে সামনের সারিতে তুলে আনার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই অভিনব জনহিতকর প্রকল্প করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ।

আরও পড়ুন –বাড়িতে এই পদ্ধতিতে এইভাবে মসুর ডাল দিয়ে ডাল পুরি করলে তার স্বাদ হয় দুর্দান্ত, খেতে হয় দারুন, রইল পদ্ধতি!

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কথা অনুসারে জেনারেল কাস্ট মহিলাদের জন্য ৫০০ টাকা করে প্রতিমাসে এবং অন্যান্য কাজ মহিলাদের জন্য হাজার টাকা করে প্রতিমাসে সরকারি অনুদান দেওয়া হবে যাতে. তারা নিজেদের হাত খরচা নিজেরা চালাতে পারে ।তার জন্য অতি অবশ্যই আপনাকে স্বাস্থ্য কার্ড থাকতে হবে ।অর্থাৎ যদি আপনার স্বাস্থ্য অধিকার না থাকে তাহলে কিন্তু আপনি আবেদন করতে পারবেন না ।

অপরদিকে আপনার একটি সিঙ্গেল ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে । কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে যে আগেরবারের দুয়ারে সরকারকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর নাম নথিভুক্ত করার পরও এখনো পর্যন্ত সেই কার্ড আপনার হাতে এসে পৌঁছায়নি। সে ক্ষেত্রে তারা কিভাবে আবেদন করবেন তা জানাবো আজকের এই প্রতিবেদনে ।

আরও পড়ুন –বৃদ্ধ ভাতা- বিধবা ভাতা যেভাবে বাড়িতে বসেই ৫ মিনিটে আবেদন করবেন, রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি!

রাজ্য সরকারের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে খুব স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে যে যারা এখনো পর্যন্ত স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হাতে পায়নি তারা দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে গিয়ে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করার সুযোগ সুবিধা পাবেন। এবং তাদেরকে সবরকম সহযোগিতা করবে সরকারি আধিকারিক রা । দুয়ারে সরকারকে নিজের নাম স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য নথিভূক্ত করার পর তারা লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবে ।

Related Articles

Back to top button