ময়ূরেশ্বরে বিজেপি বুথ সভাপতির বাড়ির পাশে উদ্ধার ড্রাম ভর্তি তাজা বোমা। প্রবল চাঞ্চল্য এলাকায়।

ময়ূরেশ্বরে বিজেপি বুথ সভাপতির বাড়ির পাশে উদ্ধার ড্রাম ভর্তি তাজা বোমা। প্রবল চাঞ্চল্য এলাকায়।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে হিংসা হানাহানি অব্যাহত রাজ্যের দিকে দিকে। প্রথম দফার ভোট শান্তিপূর্ণভাবে মিটলেও, দ্বিতীয় দফা থেকে নন্দীগ্রামে এবং রাজ্যের আরো বিভিন্ন প্রান্তে যথেষ্ট হিংসা-হানাহানি ঘটনা দেখা যাচ্ছে। ‌ সবথেকে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহারের শীতলকুচি তে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের আক্রমণ করার চেষ্টা করায় জ‌ওয়ানদের গুলিতে প্রাণ গিয়েছে ৪ জন তৃণমূল সমর্থক এর।

আবার ওই বুথেই ভোট চলাকালীন তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে বোমা এবং গুলি ছোঁড়ার অভিযোগ উঠেছে । তাদের গুলির আঘাতে মারা গিয়েছেন আনন্দ বর্মন নামক এক ভোটার। আরামবাগ থেকে শুরু করে খানাকুল এবং রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় হিংসা হানাহানির ঘটনা ঘটেছে। ভোটের এই আবহে তীব্র হয়েছে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে রাজনৈতিক তরজা। দুই শক্তিশালী রাজনৈতিক দলের দ্বৈরথে টানটান উত্তেজনা বাংলার বুকে।

আরও পড়ুন-শীতলকুচির কাণ্ডের বিষয়ে মুখ খুললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

এদিকে ময়ূরেশ্বরে বিজেপি বুথ সভাপতির বাড়ির পাশ থেকে উদ্ধার হয়েছে ড্রামভর্তি তাজা বোমা। ময়ুরেশ্বর বিধানসভার কুন্ডলা গ্রামে বিজেপির বুথ সভাপতি অভিজিৎ বাগদির বাড়ির পাশে ড্রামভর্তি তাজা বোমা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় প্রবল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে সারা এলাকা জুড়ে।

তবে অভিজিৎ বাবু দাবী করেছেন যে, তাঁকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে। তিনি বলেছেন, গত রাত্রে তিনি যখন দলীয় কর্মীদের নিয়ে বিজেপির পতাকা লাগাচ্ছিলেন তখন তৃণমূলের লোকজন তাকে হুমকি দেয় যে অবিলম্বে বিজেপি না ছাড়লে তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হবে। তারাই তাকে ফাঁসানোর জন্য এই বোমা রেখে গিয়েছে বলে দাবি করেছেন অভিজিৎ বাবু।