“এতদিন ভাটপাড়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে অশান্তি হত।”- বললেন বিজেপি নেতা অর্জুন সিং

“এতদিন ভাটপাড়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে অশান্তি হত।”- বললেন বিজেপি নেতা অর্জুন সিং

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজ সকাল থেকেই ষষ্ঠ দফার নির্বাচনকে ঘিরে যথেষ্ট অশান্তির সূত্রপাত ঘটেছে। ব্যারাকপুরে তৃণমূল প্রার্থী রাজ চক্রবর্তীকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখিয়েছে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তাকে ঘিরে জয় শ্রীরাম, এবং গো ব্যাক স্লোগান দিয়েছে বিজেপি কর্মীরা। এদিকে গলসির মনোহর সুজাপুর গ্রামে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে তারা ভোটারদের ভোট দিতে দিচ্ছেনা। ‌ বিশাল কেন্দ্রীয় বাহিনী ওই এলাকায় গিয়েছে। ‌

বীজপুরে এক বিজেপি কর্মীর বাড়িতে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে। ‌ অভিযোগ উঠেছে যে বিজেপি কর্মীর বৃদ্ধা মাকেও বেধড়ক মারধর করেছে তৃণমূল সমর্থকরা। এছাড়াও পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামে তৃণমূলের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ এনেছে বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা। ‌ ওই এলাকায় পুলিশকে ইট ছোঁড়ার অভিযোগ উঠেছে । আমডাঙায় রংমহল বুথের ২০০ মিটার দূরে উদ্ধার করা হয়েছে বেশ কয়েকটি তাজা বোমা। বিভিন্ন জায়গা থেকে ঝামেলা অশান্তির বিক্ষিপ্ত ঘটনার খবর মিলছে।

আরও পড়ুন-দেখে নিন আজকের জেলা ভিত্তিক কোন কোন বিধানসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে।

এখনো পর্যন্ত জানা গিয়েছে সকাল ৯ টা পর্যন্ত ১৭.১৯% ভোট পড়েছে।তবে দীর্ঘদিন ধরে অশান্তির শিরোনামে থাকা ভাটপাড়ায় আজ যথেষ্ট শান্তিপূর্ণভাবে ভোটপর্ব সম্পন্ন হচ্ছে। ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং আজ বাড়িতেই রয়েছেন এখনো পর্যন্ত। তিনি বলেছেন,”এখনো পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হচ্ছে। ৮২ নম্বর বুথের অদূরে বোমা পড়েছে, কিন্তু ভোটাররা তেমন ভয় পাননি, নির্বিঘ্নে সকলে ভোট দিয়েছেন।

মানুষ ভোট দিচ্ছে, মানুষ পরিবর্তনের পক্ষে রয়েছে। সমস্ত জায়গায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে অশান্তি হয়েছে। ভাটপাড়াতেও এতদিন হয়ে এসেছে। শীতলকুচিতেও মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর জ‌ওয়ানদের ঘেরাও করা হয়েছিলো। যত অশান্তি হয়েছে তার দায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এড়িয়ে যেতে পারেন না।”