নিউজপলিটিক্স

নবান্ন দখলের লড়াইতে ১১০টি আসনের দায়িত্বে বহিরাগত কেন্দ্রীয় নেতারা, রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-প্রথম থেকেই নিজেদের সংগঠন মজবুত করার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় নেতাদের হাতিয়ার করে প্রচারকার্য চালাচ্ছে পদ্মফুল শিবির। এই প্রসঙ্গে বারবার বিজেপিকে বহিরাগত প্রসঙ্গে আক্রমণ করেছে শাসক দল। যদিও তাতে থেমে থাকেনি বিজেপি নেতৃত্ব।

Advertisement

চলতি বছরের বিধানসভা নির্বাচনে রাজনৈতিক পালাবদলের লক্ষে বাংলার ১১০ টি আসন বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।এমনকি কলকাতা সংলগ্ন এই আসনগুলি হাতের বাইরে বেরিয়ে গেলে কোনোমতেই রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে পারবে না বিজেপি। তাই আপাতত এই ১১০টি আসনকে বিশেষভাবে চিহ্নিত করে সেই আসনগুলোর দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে ২২জন শীর্ষস্থানীয় বিজেপি নেতা কে।

Advertisement

আরও পড়ুন-নির্বাচনী প্রেক্ষাপটে বদলি দুই জেলাশাসক,বিজ্ঞপ্তি জারি নবান্নের !

এই প্রসঙ্গে বাংলায় বিজেপির অন্যতম দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা অমিত মালব্য জানিয়েছেন,”কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বা বিজেপিশাসিত অন্য রাজ্যগুলির মন্ত্রীদের পশ্চিমবঙ্গে ৫-৬ টি লোকসভা কেন্দ্রের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।এর মধ্যে অনেক নেতারই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা বা একযোগে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে।

Advertisement

সেই অভিজ্ঞতাকেই নির্বাচনে কাজে লাগাবে বিজেপি”।এই অভিজ্ঞ নেতৃত্ববর্গের মধ্যে রয়েছেন নিশিকান্ত দুবে,বিনোদ শংকর, বিনোদ তাওদে, ধর্মেন্দ্র প্রধান, প্রদীপ সিনহা বাঘেয়াল, বসন্ত পাণ্ডে, আর কে সিং, মঙ্গল পাণ্ডে, রমেশ বিধুরি, রাজ্যবর্ধন সিং রাঠৌর, নীতিন নবীন, বিনয় সহর্ষবুদ্ধি, আশিস শেহলার, রাধামোহন সিং, মদন লাল শর্মা, সতীশ উপাধ্যায় প্রমুখ।

Advertisement

Related Articles

Back to top button