“সকলকে দেওয়া হবে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন”- ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

“সকলকে দেওয়া হবে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন”- ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: দেশজুড়ে মৃত্যুর আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে করোনা ভাইরাস। এই ভয়াববহ ভাইরাসের দ্বিতীয় বারের তান্ডবে দেশজুড়ে মারা যাচ্ছেন বহু মানুষ। ভারতে বর্তমানে করোনার দুটি ভ্যাকসিন চালু রয়েছে, একটি হল কোভ্যাক্সিন এবং অন্যটি হল কোভিশিল্ড। এছাড়াও রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিন কেউ ছাড়পত্র দিতে চলেছে কেন্দ্র। ভারতে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত করোনার ব্যাপকতার পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষণা করেছিল যে আগামী ১ লা মে থেকেই করোনার ভ্যাকসিন নিতে পারবে ১৮ উত্তীর্ণ সকলেই।

দ্বিতীয় দফায় বলা হয়েছিলো ৪৫ বছর বয়সীদের পর থেকে এই টীকা দেওয়া হবে।ন্যাশনাল হেলথ অথরিটির চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার আর‌এস শর্মা জানিয়েছেন যে কেন্দ্রীয় সরকারের কোউইন অ্যাপ বা পোর্টালের মাধ্যমে আগামী ২৪ শে এপ্রিল থেকেই নিজেদের নাম নথিভুক্তিকরণ করতে পারবেন। আর এস শর্মা জানিয়েছেন , তৃতীয় পর্যায়ে কোভিডের ভ্যাকসিন আরো বেশী পরিমানে দেওয়া হতে চলেছে। কারণ ১৮ ঊর্ধে জনসংখ্যা যথেষ্ট বেশী। জানা গিয়েছে, তৃতীয় পর্যায়ে রাশিয়ার তৈরি স্পুটনিক ভি টীকাটিও বেশ কিছু কেন্দ্রে দেওয়া হতে পারে।

আরও পড়ুন-এবার রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে উঠলো গুলি চালনার অভিযোগ

এদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি মানবিক ঘোষণা করেছেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে। বেশ কিছুদিন আগেই তিনি সরব হয়েছিলেন কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে। তিনি বলেছিলেন, “আমি বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কেন্দ্র, রাজ্যে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে না। আমি ফ্রি তে ভ্যাকসিন দেবো।”

এছাড়াও ভ্যাকসিনের মূল্য সরকারি হাসপাতালে ৪০০ টাকা এবং বেসরকারি হাসপাতালে ৬০০ টাকা হলেও কেন্দ্রীয় সরকারকে সেটা ১৫০ টাকাতেই দিয়ে দেওয়া হচ্ছে সেই বিষয়েও সুর চড়িয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।এবার মুখ্যমন্ত্রী আজ সংক্ষিপ্ত জনসভা থেকে বলেছেন যে,”১৮ বছরের উর্ধ্বে রাজ্যের সমস্ত নাগরিকদের বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারকে বলেছি ভ্যাকসিন পাঠানোর জন্য। আমরা সমস্ত মানুষকে ফ্রি তে ভ্যাকসিন দেবো।”