নিউজপলিটিক্স

“আমরা শূন্য পেলেও বামপন্থীরা বামপন্থীই থাকবে।”- বললেন সূর্যকান্ত মিশ্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: ৩৪ টা বছর বাংলাকে শাসন করেছে বামেরা। বামেদের আমলে যেমন কৃষি, শিক্ষা, শিল্পের জোয়ার দেখা গিয়েছিলো তেমনি তাদের কিছু বিষয় সাধারণ মানুষ মেনে নিতে পারেননি। দীর্ঘ ৩৪ বছর বাম জমানা শেষ হয় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জির হাত ধরে। সিঙ্গুর এবং নন্দীগ্রাম আন্দোলনের পর কার্যত বাম ব্রিগেড ধ্বংসের মুখে পড়ে। যে বামপন্থা আদর্শ নিয়ে চলত সিপিআইএম সেই আদর্শ অনেকটাই ধাক্কা খায় যুব সমাজের কাছে। তারপর কেটে গিয়েছে দশ দশটা বছর । বাংলায় শেষ হয়ে গিয়েছে একুশের বিধানসভা নির্বাচন। এবার আগামীকাল ফল প্রকাশের অপেক্ষা।

বাংলার মানুষ বেছে নিতে চলেছেন তাদের মনোনীত মুখ্যমন্ত্রী কে। কিন্তু এবারে আস্তে আস্তে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বামফ্রন্ট। কংগ্রেস এবং আইএসএফএর সাথে জোট করে যথেষ্ট শক্তিশালী রাজনৈতিক দল‌হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে তারা। এবারে বৃদ্ধ নেতা নেত্রীদের পিছনে রেখে সামনের সারিতে এগিয়ে এসেছে বামেদের তরুণ প্রজন্ম । এক ঝাঁক তরুণ মুখকে এবারে গুরু দায়িত্ব অর্পণ করেছে বাম সংযুক্ত মোর্চা। কিন্তু সমীক্ষা বলছে এবারে অনেকটাই পিছিয়ে আছে বাম সংযুক্ত মোর্চা ।

আরও পড়ুন-ভারত থেকে ফিরলেই ৫ বছরের জেলহাজত, জরিমানা অষ্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের। নিন্দায় মানবাধিকার সংগঠনগুলো।

বুথ ফেরত সমীক্ষা গুলিতে কোনো জায়গাতেই ৩০ টির বেশী আসন উল্লেখ করা হয়নি বামেদের অনুকূলে। কিন্তু বাম নেতৃত্বরা বারবার বলে এসেছেন যে দলে কখনোই তাদের বিভাজন দেখা দেবে না এ সম্পর্কে তারা নিশ্চিত। এবারের ২১ এর ভোটে বিজেপি এবং তৃণমূল এই দুটি দলের অন্দরেই দেখা গিয়েছে দলত্যাগের এবং দলবদল এর ঘটনা ।

এই প্রসঙ্গে সূর্যকান্ত মিশ্র একটি বক্তৃতায় বলেছেন যে,”আমরা শূন্য‌ই পাই, অথবা ১ পাই কি ৫ পাই, কিছুই যদি না পাই তাহলেও বামপন্থীরা বামপন্থীই থাকবে।” সূর্যকান্ত মিশ্রের গলা থেকে ঝরে পড়েছে দৃঢ় আত্মবিশ্বাস। এই ভিডিওটি কবেকার এবং কোথায় তোলা হয়েছে তার সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি কিন্তু ভিডিওটিতে সূর্যকান্ত মিশ্রের কন্ঠে বহু বামপন্থী সমর্থককেই অক্সিজেন যুগিয়েছে।

Related Articles

Back to top button