নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“কাজ করতে চাইলেও একসঙ্গে অনেক নেতাকে বসিয়ে রাখা হয়।”- মুকুল রায় দলত্যাগ করতেই বিদ্রোহ বিজেপির অন্দরে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিরাট ভাঙন গেরুয়া শিবিরে। আনুষ্ঠানিক ভাবে তৃণমূলে যোগদান করলেন মুকুল রায়। গত বছরেই তিনি তৃণমূলে ফিরে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তখনকার মতো বিজেপি শীর্ষ নেতারা তাঁর সাথে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি মিটিয়ে ফেলেছিলেন।

গতকাল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে পদ্মফুল শিবিরের সাথে বিগত চার বছরের সম্পর্কের ইতি টেনে তৃণমূলে ফিরেছেন মুকুল রায়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মুকুল রায়ের গলায় তৃণমূলের উত্তরীয় পরিয়ে দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে তৃণমূলে যোগদান করালেন। জল্পনা হচ্ছে লোকসভায় দুটি সংসদীয় আসনের মধ্যে একটিতে মুকুল রায়কে পাঠাতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে মুকুল রায়ের আবার বিজেপির সঙ্গ ত্যাগে তাঁকে একহাত নিয়েছেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

আরও পড়ুন-“মল-মূত্র ত্যাগ করলে মানুষ দূর্বল হয়না।”- দলবদলুদের আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়

এর আগেও তিনি বিজেপির আরেক বেসুরো নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছিলেন টুইটারে। কিন্তু তৃণমূলের জয়লাভের পর থেকেই দলবদলু নেতা নেত্রীদের দলত্যাগের ধূম পড়ে গিয়েছে বিজেপিতে। তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে চিঠি দিয়েছেন সোনালী গুহ, সরলা মুর্মু, দীপেন্দু বিশ্বাস। মুকুল রায় যেতেই এবার বিজেপির অন্দরে দেখা দিল অত্যন্ত কলহ।

এবার বিজেপির শীর্ষ নেতাদের আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা। তিনি বলেছেন,”এখানে একসাথে অনেক নেতাকে বসিয়ে রাখা হয়। কাজ করতে চাইলেও অনেক নেতাকে শুধু শুধু বসিয়ে রাখা হয় কোন রকম কাজ না দিয়ে। আমরা সবাই চেয়েছিলাম তৃণমূলের বিরুদ্ধে একসাথে লড়াই করব।

আরও পড়ুন-গলায় উত্তরীয় পরিয়ে দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আনুষ্ঠানিকভাবে তৃণমূলে যোগ দিলেন মুকুল রায়।

কিন্তু ভোটের সময় দেখা গিয়েছে অনেক নেতাকে ক্যাম্পেইনে ডাকা পর্যন্ত হয়নি । দুর্ভাগ্যবশত আমাদের অনেকেই ভোটের সময় কোন রকম দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।”একাধিক বিজেপি নেতা বাংলায় একুশের ভোটের প্রচারে কেন্দ্রীয় হিন্দিভাষী নেতাদের একচ্ছত্র আধিপত্যকেই দায়ী করেছেন। বিজেপি নেতা রন্তিদেব সেনগুপ্ত বলেছেন, “পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ অথবা গুজরাটের মত রাজনীতি নয় ।

সেটা বুঝতে হবে। সংস্কৃতি মনস্ক , শিক্ষিত একটি বাঙালি মুখ আমাদের খুঁজতে হবে। যারা কথায় কথায় হুমকি দেবেনা।”

Related Articles

Back to top button