নিউজটেক নিউজদেশ

সরকারি আয় হ্রাস পেলেও হ্রাস পাবেনা মূল্যবৃদ্ধি। পেট্রোল-ডিজেলের অগ্নিমূল্য নিয়ে দ্বিধাগ্রস্থ কেন্দ্রীয় সরকার।

নিজস্ব প্রতিবেদন: কেন্দ্রীয় সরকার পেট্রোল এবং ডিজেলের উপর থেকে নিয়ন্ত্রণ তুলে নিয়েছিল আগেই। গত বছর জুন মাসে বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম কমেছিলো প্রতি ব্যারেলে ৩৫ টাকা। তখনও আমাদের দেশে পেট্রোল ডিজেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছিলো। এই দাম বেড়েছে কেন্দ্রের আন্তঃশুল্ক এবং রাজ্য সরকারের ট্যাক্সের দরুন ।

২০১৪ সালে পেট্রোলের বেস প্রাইস ছিলো ৪৭.১২ টাকা, সেই সাথে কেন্দ্রের কর ছিলো ১০.৩৯ টাকা। ডিলারদের ট্যাক্স ছিল ২ টাকা। সেইসাথে রাজ্যের কর ছিলো ১১.৯ টাকা। তখন পেট্রোলের লিটার প্রতি মোট মূল্য ছিল ৭১.৪১ টাকা।

আরও পড়ুন-কার্গিল দিবসে বীর সেনাদের সাহসিকতাকে সম্মান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বর্তমানে ১৬ ই মে ২০২১ এর হিসাবে পেট্রোলের লিটার প্রতি বেস প্রাইস হয়েছে ৩৪.১৯ টাকা, সেখানে কেন্দ্র কর চাপাচ্ছে ৩২.৯ টাকা। ডিলারদের ট্যাক্স হয়েছে ৩.৭৭ টাকা। রাজ্যের কর হচ্ছে ২১.৩৬ টাকা। যার দরুন পেট্রোলের লিটার প্রতি দাম হয়েছিল ৯২.৫৮ টাকা।

যার দরুণ অপরিশোধিত তেলের দাম কমলেও কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকারের অতিরিক্ত ট্যাক্সের দরুণ দাম বেড়েছে জ্বালানির।এমতাবস্থায় অর্থ মন্ত্রকের এক শীর্ষকর্তা বলেছেন , “মে জুন মাস নাগাদ পেট্রোল-ডিজেলের বিক্রি লকডাউন এর জন্য অনেকটাই কম হয়েছে। যার ফলে যদি এই মুহূর্তে আমরা পেট্রোল ডিজেলে উৎপাদন ট্যাক্স ১০ টাকা কমিয়ে দিই , তাহলে রাজকোষে ঘাটতি বৃদ্ধি পাবে ০.৬%।”পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির দরুন সমস্ত আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র এর প্রভাব লক্ষিত হচ্ছে।

আরও পড়ুন-হাওড়া, শিয়ালদাতে বাড়ানো হল স্টাফ স্পেশাল ট্রেনের সংখ্যা।

পরিবহনের খরচ দ্বিগুণ হয়ে যাওয়ায় সমস্ত জিনিসপত্রের দাম হুহু করে বাড়তে থাকছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন এই বছরের বাজেটে অন্তত ৬.৮% রাজকোষ ঘাটতির লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করেছেন। তাই কেন্দ্রীয় সরকার বর্তমানে পেট্রোল ডিজেলের মূল্য হ্রাস করবে কি না সেই বিষয়ে যথেষ্ট দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে রয়েছে। এছাড়াও পেট্রোল-ডিজেলের দাম নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে রিজার্ভ ব্যাংকের সাথে কেন্দ্রীয় সরকারের বেশ কয়েকদিন ধরে মতানৈক্যের সৃষ্টি হয়েছে। ‌

তার কারণ পেট্রোল ডিজেলের অগ্নিমূল্যের ফলে মূল্যবৃদ্ধির হার রিজার্ভ ব্যাংকের লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে ফেলেছে। এমতাবস্থায় আগামী দিনে কি সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় সরকার সেই দিকেই তাকিয়ে মানুষজন।

Related Articles

Back to top button