নিউজ

ন্যাশনাল হাইওয়ের ধারে 40-50 কিমি পরপর বসবে ইলেকট্রিক চার্জিং স্টেশন! জানালো NHAI!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-একদিকে যেমন পেট্রোল ও ডিজেলের দাম বেড়েই চলেছে অপরদিকে কিন্তু এমনটা ভুলে গেলে চলবে না যে ধীরে ধীরে শেষ হয়ে আসছে এর ভাণ্ডার। তাই আগামী দিনে ইলেকট্রিক গাড়ির উপর ভরসা রাখে বিশেষজ্ঞরা। এমনটা মনে করা হচ্ছে যেহেতু পেট্রোল এবং ডিজেলের গাড়ি থেকে বেশি পরিমাণে দূষণ ছড়াচ্ছে।

পাশাপাশি যেহেতু এর ভাণ্ডার শেষ হয়ে আসছে ইলেকট্রিক গাড়ি আগামী দিনের পথ দেখাবে আমাদেরকে ।ইতিমধ্যে বাজারে একাধিক ইলেকট্রিক গাড়ি চলে এসেছে আধুনিক প্রযুক্তির সাথে। এবং এই সমস্ত ইলেকট্রিক গাড়ি গুলিতে দূরবর্তী কোনো জায়গায় যেতে গিয়ে যাতে কোনো ধরনের কোন সমস্যার সম্মুখীন না হয় তার জন্য ন্যাশনাল হাইওয়ে ঘোষণা করল এই সিদ্ধান্ত।

দুরে কোন জায়গায় যেতে গিয়ে যদি কোনো কারণে গাড়ির চার্জ শেষ হয়ে যায় তাহলে এক প্রকার ভোগান্তির শিকার হতে হবে চালকদেরকে ।তাই ন্যাশনাল হাইবে তরফ থেকে এমনটা জানানো হয়েছে যে এবার থেকে 40 থেকে 50 কিলোমিটারের ব্যবধানে একটি করে চার্জিং স্টেশন বসাবে ন্যাশনাল হাইওয়ে সমগ্র 40 হাজার কিলোমিটার হাইওয়ে তে সর্বমোট 700 টি চার্জিং পয়েন্ট বসানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ন্যাশনাল হাইবে । শুধুমাত্র চার্জিং স্টেশন নয় তার পাশাপাশি বিশ্রামাগার ,টয়লেট ,রেস্তোরাঁ ,পেট্রোল এবং ডিজেলের ব্যবস্থা থাকবে সেখানে। যদি কোন কারনে কোন গাড়ির চার্জ শেষ হয়ে যায় অনায়াসে চার্জিং স্টেশন থেকে চার্জ করে নিতে পারবেন।

এ প্রসঙ্গে ন্যেশনাল হাইওয়ে এর চেয়ারম্যান গিরিধর আরও বলেন, “আমরা ১০০টি রাস্তার জন্য বিড (দর) ডেকেছি এবং অসংখ্য সাড়া পেয়েছি। প্রত্যেকটি রাস্তার জন্য ৬ থেকে ৭ টি বিড ডাকা হয়েছে। একবার বিড পাকাপাকি হয়ে গেলে ছয় মাসের মধ্যে কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।” ন্যাশনাল হাইওয়েতে যে কেউ বৈদ্যুতিক গাড়িতে যাত্রা করলে তাঁকে আর সমস্যায় পড়তে হবে না যদি না তাঁর গাড়িটি বিকল হয়ে যায়, বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।তবে শুধুমাত্র সরকার নয় তার পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা গুলি আগ্রহ দেখিয়েছে এই কাজের জন্য ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button