নিউজপলিটিক্স

কয়লা পাচার কাণ্ডে অভিষেক-রুজিরাকে তলব ইডির, প্রতিবাদে গজে উঠলেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন:- রাজ্যে বিধানসভা ভোটের আগে কয়লা পাচার কাণ্ডে অভিযুক্ত করা হয়েছিল অভিষেক ব্যানার্জি এবং তার স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় কে । তবে সেই ঘটনার প্রকাশ্যে আসার পর তুমুল চাঞ্চল্য ছড়ায় গোটা রাজনৈতিক মহলে । বিশেষ করে তৃণমূল কংগ্রেসে এর তরফ থেকে । বিশেষজ্ঞদের মতে বাংলার পরিকাঠামো চক্রান্ত ভাবে নষ্ট করার চেষ্টা করছে কেন্দ্র। ।

ইচ্ছাকৃতভাবে কেন্দ্রীয় সরকার গোয়েন্দা সংস্থা কে নিযুক্ত করছে যাতে বিধানসভা ভোটের গন্ডগোল তৈরি করা যায় । যদিও সেই ঘটনা পেরিয়ে যাওয়া কয়েক মাস হল। কিন্তু পুনরায় মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে কয়লা পাচার কান্ড । এবার পুনরায় কয়লা পাচার কাণ্ডে অভিযুক্ত অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় কে তলব করেছে ।

আরও পড়ুন –সেপ্টেম্বরে টানা ১২ দিন বন্ধ থাকে চলেছে ব্যাঙ্ক। জেনে নিন বিস্তারিত

আগামী পহেলা সেপ্টেম্বর রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় কে দিল্লিতে উপস্থিত থাকার জন্য বলা হয়েছে এবং তেসরা সেপ্টেম্বর দিল্লিতে উপস্থিত থাকবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় । এই ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে তৃণমূল কংগ্রেস । তার সাথে সাথে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তীব্র প্রতিবাদ জানায় ওই দিন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে ।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে পকেট একটি নেংটি ইন্দুরে রেখেছো । সেটাকে বারবার বের করছ । কিন্তু তুমি জানো না যে সে ইঁদুর তোমার পকেট কেটে দিয়েছে । একটা ইডি দেখালে বস্তা বস্তা কাগজ নিয়ে আমরা ইডি এর সামনে হাজির হব । মনে রাখবে এটা বাংলা ।এখানে একটা আঙ্গুল তুলে দশটা আঙ্গুল তোমার জন্য তৈরি করা আছে । ঠিক এই ভাষাতেই হুংকার প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন –“শিক্ষাব্যবস্থার অন্তর্জলী যাত্রা হয়েছে”- বিশ্বভারতীর উপাচার্য বাড়ি ঘেরাও করার প্রসঙ্গে বললেন দিলীপ ঘোষ।

নিশানাই রেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে । তবে শুধুমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নয় তার সাথে সাথে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতিবাদ জানান এর । তিনি বলেন যে আমাদেরকে যত এরকমভাবে হেনস্তা করা হবে আমরা ততোই আমাদের লক্ষ্যে অবিচল থাকার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হব । তার পাশাপাশি তৃণমূল ছাত্র পরিষদের তীব্র নিন্দা করেছে এই ঘটনার ।

কিন্তু উল্টো সুর শোনা গেছে বিজেপির তরফ থেকে ।বিজেপির তরফ থেকে শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন যে যখনই কোনো তদন্ত শুরু হয় তখনই এরকম ভাবে আটকে দেওয়ার জন্য পাল্টা প্রতিরোধ আনা হয় তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে যা গণতান্ত্রিক নিয়ম লঙ্ঘন করে ।

Related Articles

Back to top button