নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“শিক্ষিত বেকারদের চোখের জলের টাকা ক্লাবগুলির হাতে তুলে দেবেন না”- মুখ্যমন্ত্রী কে আক্রমণ করলেন রুদ্রনীল ঘোষ

নিজস্ব প্রতিবেদন: ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে হেরে গিয়ে কার্যত নিষ্ক্রিয় হয়ে গিয়েছিলেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। কিন্তু আবার তিনি সক্রিয়তা দেখিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত সোমবার ঘোষণা করেছেন যে, তিনি রাজ্যের ২৫ হাজার ক্লাবকে ৫ লক্ষ টাকা করে প্রদান করবেন। তাঁর এই ঘোষণার পরেই মুখ্যমন্ত্রী কে আক্রমণ করে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ।

তিনি হিসাব কষে দেখিয়ে দিয়েছেন যে, ৫ লক্ষ টাকা করে ২৫ হাজার ক্লাবকে দিলে মোট খরচ হবে ১২৫ কোটি টাকা। রুদ্রনীল এই পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে প্রশ্ন রেখেছেন যে, “এই টাকা আপনার না আপনার দলের? এই টাকা কার? আমরা সকলেই জানি এই টাকা জনগণের। দয়া করে এই টাকা বাংলার উন্নয়নের জন্য খরচ করুন। ”

আরও পড়ুন-“বিজেপির বিদায় আসন্ন, ত্রিপুরায় সরকার গড়বে তৃণমূল”- মন্তব্য কুণাল ঘোষের

তিনি ফেসবুকে লম্বা পোস্টে লিখেছেন, “ঝড়ের দাপটে কাজ হারিয়েছেন যে অগণিত মানুষ, ৫-৬ বছর ধরে চাকরির জন্য অন্দোলন বিক্ষোভে রাস্তায় বসে আছে যে লক্ষ লক্ষ শিক্ষিত বেকার যুবক, “শ্রী” অনুদানে বাঁচার অভ্যাস থেকে স্বসম্মানে স্বনির্ভর হতে চাইছে যে মেয়েগুলো – এই টাকাটা তাদের টাকা। তার ও তার পরিবারের রক্ত জল করা ট্যাক্সের টাকা।ক’দিন আগের একটা খবর স্পষ্ট করে দিয়েছিল এগিয়ে না পিছিয়ে বাংলা, এ রাজ্যে ডোমের চাকরির জন্য ৮০০০ আবেদন পত্র পড়েছিল মাত্র কয়েকদিনে। মাইনে ১৫ হাজার, তাও পার্মানেন্ট নয় এই চাকরি।

আরও পড়ুন-“ভোটের সময় যারা বলেছিলো সোনার বাংলা বানাবো তাদের আর হদিশ পাওয়া যাচ্ছে না।”- ঘাটালে বন্যা পরিস্থিতি দেখতে গিয়ে বললেন দেব

এইট পাশ করা চাকরি পেতে পচা গলা লাশের সাথে সময় কাটাতে রাজী ছিলেন মাষ্টার ডিগ্রি বা ইঞ্জিনিয়ার পাশ করা বেকার যুবকরা। এমন কি ৭৪ জন মহিলাও আবেদন করেছিলেন ডোম হ‌ওয়ার জন্য। এই টাকাটা এদের সবার টাকা। মানুষ আবার ক্ষমতায় এনেছেন বলে মানুষের টাকা দিয়ে যা খুশী করবেন না দয়া করে।

শিক্ষিত বেকার ছেলেমেয়েদের চোখের জল আছে এই টাকায়। ক্লাবের ফূর্তি বা আনন্দের বিনিময়ে তাদের হাতে রাখতে আর ভোট কব্জা করতে এই টাকার ব্যবহার বন্ধ করুন। বাংলা যে আসলে বিপদে আছে তা সব থেকে বেশী জানেন। আপনিই।”

Related Articles

Back to top button