মানুষের ঘরে ঘরে দুধ পৌঁছে দেওয়ার কথা বলেই ট্রোলড্ হলেন দিলীপ ঘোষ।

মানুষের ঘরে ঘরে দুধ পৌঁছে দেওয়ার কথা বলেই ট্রোলড্ হলেন দিলীপ ঘোষ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিশ্ব দুগ্ধ দিবসের দিন সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেছিলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি এই পোস্টে উল্লেখ করেছেন যে, ‘বিশ্বের বাজারে দুগ্ধ ও দুগ্ধজাত পণ্যকে তুলে ধরা ও দুগ্ধ সমবায় গড়ে তোলার নেপথ্যে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের অবদান ছিল অপরিসীম।’এছাড়াও এই পোস্টে লেখা ছিলো ‘বিশ্ব দুগ্ধ দিবসে দুগ্ধ ও দুগ্ধজাত পণ্যকে আরো বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়াই হোক লক্ষ্যমাত্রা।‘কিন্তু এই পোস্টের পরেই মারাত্মক হারে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল হতে হলো বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে।

এর আগে গোরুর দুধে সোনা থাকে বলে মন্তব্য করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক পরিমাণে ট্রোলড হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। এখনো পর্যন্ত তার এই উক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় বারবার ঘুরেফিরে আসে। এমনিতেই গোরুকে গোমাতা রূপে পূজো করে আপামর হিন্ধুরা। বিজেপি নেতাদের অনেকেই গোদুগ্ধ এবং দুগ্ধজাত দ্রব্যগুলিকে আরো বেশী সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে আসছেন বহুদিন থেকেই।

আরও পড়ুন-পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি বাড়িতে বিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছে দিতে ৭ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করল কেন্দ্রীয় সরকার।

এছাড়াও বিভিন্ন ইস্যুতে গোমাতার প্রসঙ্গ টেনে আনে বিজেপি। কিন্তু এই গোদুগ্ধ এবং দুগ্ধজাত পণ্য মানুষের কাছে আরো বেশি মাত্রায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে সাংঘাতিক ভাবে ট্রোলড্ হয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর উক্ত পোস্টে কমেন্টের পর কমেন্ট জুড়ে শুধুমাত্র উপহাস আর কটাক্ষের বন্যা বয়ে গিয়েছে। এক নেটিজেন লিখেছেন, ‘দুধের বদলে সোনা পৌঁছে দিলে মানুষের আরো বেশি উপকার হবে।

আরও পড়ুন-“মহামারি নিয়ম অমান্য করার জন্য মুখ্যসচিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ।”- আলাপন ইস্যুতে বললেন শুভেন্দু অধিকারী।

‘আবার আরেক নেটিজেন লিখেছে, ‘দিলীপবাবু আবার গোয়ালে ফিরে গিয়েছেন।’এছাড়াও বিভিন্নভাবে নানান মন্তব্য করা হয়েছে এই পোষ্টের কমেন্টে। যেমন আরেকজন লিখেছেন, ‘আমার ৫ কেজি সোনা চাই।’ আবার পরক্ষণেই একজন কমেন্ট করেছেন, ‘এবার একদম সঠিক রাস্তা। এই রাস্তা আপনি ছাড়বেন না।’একটা সাধারণ পোস্টের নীচে শুধুমাত্র কটাক্ষ আর কটাক্ষ।