“দিলীপ ঘোষকে অবিলম্বে গ্রেফতার করা হোক”- দাবি করল তৃণমূল

“দিলীপ ঘোষকে অবিলম্বে গ্রেফতার করা হোক”- দাবি করল তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে সবথেকে চর্চার বিষয় কোচবিহারের শীতলকুচি। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের ঘেরাও করে আক্রমণ করার অভিযোগে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা গুলি চালিয়েছে যার দরুন প্রাণ গিয়েছে ৪ তৃণমূল সমর্থকের। এই ঘটনায় গতকাল সারা রাজ্য জুড়ে কালা দিবস পালন করেছে তৃণমূল। ‌ মুখ্যমন্ত্রীকে নির্বাচন কমিশন অনুমতি দেয়নি কোচবিহারে নিহতদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য। ভিডিও কলে নিহত তৃণমূল সমর্থক দের পরিবারের সাথে কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ‌ তিনি আশ্বাস দিয়েছেন নিহত তৃণমূল সমর্থক দের পরিবারের পাশে তিনি থাকবেন ।

ওদিকে ওই বুথেই গুলি করে হত্যা করা হয়েছে আনন্দ বর্মনকে। এই হত্যার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে।এই ঘটনায় তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে তীব্র রাজনৈতিক দরজার সৃষ্টি হয়েছে ।‌ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে বলেছেন, “মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করা উচিত, উনি মানুষকে উস্কে দিতে চেষ্টা করছেন , উনার প্রচার সভা গুলি বন্ধ করে দেওয়া উচিত।

আরও পড়ুন-রাজ্যে পা রেখে শীতলকুচি কাণ্ড প্রসঙ্গে মুখ খুললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

শীতলকুচি তে দুষ্টু ছেলেদের গুলি করা হয়েছে, বাংলায় আর কেউ আইন নিজের হাতে তুলে নিতে পারবেন না, কেন্দ্রীয় বাহিনী শুধু শুধু বন্দুক নিয়ে ঘুরতে আসে নি, ওদেরকে কেউ লাল চোখ দেখাতে সাহস পাবে না, কেউ যদি বাড়াবাড়ি করার চেষ্টা করে তাহলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে।“এদিকে সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় বলেছেন, “স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মিথ্যাচারের আশ্রয় নিচ্ছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৫ জনের মৃত্যুতেই শোক প্রকাশ করেছেন। এখানে বিভাজনের রাজনীতি করছে বিজেপি। রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ প্রচার সভায় যা বলছেন তার জন্য অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। তাকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করা উচিৎ।”