দলীয় কর্মীদের উপর আক্রমণ করে চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের প্রশংসা করায় তথাগতকে জবাব দিলীপ ঘোষের।

দলীয় কর্মীদের উপর আক্রমণ করে চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের প্রশংসা করায় তথাগতকে জবাব দিলীপ ঘোষের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপি নেতা তথাগত রায় টুইট করে বলেছিলেন, “একজন কাছের মানুষ আমার কাছে কাঁদতে কাঁদতে এসেছিলেন। তিনি আমাকে বলেছেন যে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা বিজেপির কয়েক হাজার কর্মীকে ঘরছাড়া করে দিয়েছে। তাদের বড় অঙ্কের টাকা দিলে তবে ঘরছাড়া কর্মীরা ঘরে ফিরতে পারবেন। আমি অসহায় হয়ে রয়েছি। ডি ফোন তুলছেন না, কেএস‌এ পালিয়েছে ।”

তথাগত রায়ের এই টুইট দেখে রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য আশ্বাস দিয়ে টুইট করে লিখেছেন, “আপনাকে অনুরোধ জানাচ্ছি যে আপনি বিস্তারিত তথ্য আমাকে দিন। যে দলেরই হোক না কেন সকলেই সুরক্ষিতভাবে যাতে বাড়ি যেতে পারে তার ব্যবস্থা করব। এই কাজের সাথে যারা যুক্ত তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলাম।”

আরও পড়ুন-“অবসরপ্রাপ্ত আমলাদের পুনর্নিয়োগের বাধ্যতামূলক হবে ভিজিল্যান্সের ছাড়পত্র।”- জারি হল নির্দেশিকা।

রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের এই টুইটের পরেই তথাগত রায় টুইট করে লিখেছেন, “আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি বলছি জয় উদারতা আনতে সক্ষম। আপনাদের কাছেই গোয়েন্দা বিভাগ এবং পুলিশ বিভাগ রয়েছে। আপনার প্রচেষ্টায় বহু মানুষ ঘরে ফিরতে পারবেন।“কেএস‌এ বলতে তিনি বুঝিয়েছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিবপ্রকাশ এবং অরবিন্দ মেননকে। এবং ডি অর্থে দিলীপ ঘোষকে।

আরও পড়ুন-“এক আধজন চলে গেলে যেতেই পারেন।”- মুকুল ইস্যুতে দিলীপের মন্তব্য নিয়ে চাঞ্চল্য রাজ্য রাজনীতিতে।

তথাগত রায়ের এই টুইটের জবাব দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ।দলীয় নেতৃত্বকে বিঁধে চন্দ্রিমা ঘোষের প্রশংসা করায় দিলীপ ঘোষ তথাগত রায়ের উদ্দেশ্যে মন্তব্য করেছেন,”আমি সর্বদা দলীয় কর্মীদের পাশেই রয়েছি। দলীয় কর্মীদের বিষয়ে যিনি এই মন্তব্য করছেন তিনি নিজেই তো দলীয় কর্মীদের পাশে থাকতে পারেন।”এই মন্তব্যের ফলে স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে যে বিজেপি দলীয় নেতৃত্বের মধ্যে বেঁধে গিয়েছে ঠান্ডা লড়াই।