নিউজ

হাসপাতালে পাননি বেড। অ্যাম্বুলেন্সেই মৃত্যু করোনা রোগীর।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে সারা ভারত জুড়ে। করোনা কাড়ছে একের পর এক মূল্যবান প্রাণ। সেই সাথে দেখা দিয়েছে দেশজুড়ে অক্সিজেনের অভাব। সেই সাথে রোগীর আধিক্যে অমিল‌ হচ্ছে হাসপাতালের বেড। সময় মত চিকিৎসা না পেয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন অসংখ্য করোনা রোগীরা। বিভিন্ন জায়গায় দেখা গিয়েছে অক্সিজেনের প্রবল সঙ্কট। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশগুলি এই সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।

পৃথিবীর উন্নত দেশগুলি ছাড়াও ছোট দেশগুলিও ভারতের এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। ভ্যাকসিন, অন্যান্য চিকিৎসার সরঞ্জাম সহ অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর পাঠাচ্ছে বিভিন্ন দেশ। পশ্চিমবঙ্গের একুশের ভোটের উন্মাদনা ফিকে হয়ে গিয়েছে মানুষের মধ্যে । মানুষ এখন একটু বেঁচে থাকার জন্য মরিয়া লড়াই চালাচ্ছে এই ভয়াবহ মহামারীর বিরুদ্ধে। মানব সমাজকে যেন তিলে তিলে গ্রাস করে নিচ্ছে এই মহামারী।

আরও পড়ুন-মোবাইলে এই চারটি জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ থাকলেই বড় বিপদ, খালি হতে পারে আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট!

দিকে দিকে লক্ষিত হচ্ছে মানুষের অসহায় পরিস্থিতির চিত্র।এ রকমই একটি ভয়াবহ এবং মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে বাগুইহাটিতে। অবসরপ্রাপ্ত এক রেল কর্মচারী অসিত দে বাগুইহাটির রঘুনাথপুরের বাসিন্দা। গতকাল তাঁর কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তাঁর স্ত্রীও পজিটিভ বলে জানা গিয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা থেকেই তাঁর প্রবল শ্বাসকষ্ট শুরু হয়, তখন তাঁকে নিয়ে তাঁর স্ত্রী এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে ঘুরে বেরিয়েছেন কিন্তু কিছুতেই কোনো হাসপাতালেই বেড পাননি।

অবশেষে রাত দশটা নাগাদ অ্যাম্বুলেন্সেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন ওই ব্যাক্তি। অ্যাম্বুলেন্স মৃতদেহ তাদের বাড়িতেই নামিয়ে দিয়ে যায়। তারপর থেকেই টানা ১২ ঘন্টা ওই ব্যক্তির মৃতদেহ বাড়িতেই পড়ে থাকে। প্রশাসনে জানিয়েও মৃতদেহ নিয়ে যাওয়ার কেউ আসেনি। তাঁর বাড়ির লোক অসহায়ের মতো চারদিকে খুঁজে বেড়াচ্ছেন যে কেউ অন্ততঃ প্রশাসনের লোকজন এসে মৃতদেহ টি নিয়ে যান সৎকারের জন্য। এলাকার মানুষ জন যথেষ্ট আতঙ্কে রয়েছেন। এই মর্মান্তিক ঘটনায় সকলেই বর্তমান পরিস্থিতি দেখে মুষড়ে পড়েছেন।

Related Articles

Back to top button