দীর্ঘ আট বছর পর জামিন পেলেন সারদা কান্ডে অন্যতম অভিযুক্ত দেবযানী। তবে এখন‌ই তাঁর কপালে নেই জেলমুক্তি।

দীর্ঘ আট বছর পর জামিন পেলেন সারদা কান্ডে অন্যতম অভিযুক্ত দেবযানী। তবে এখন‌ই তাঁর কপালে নেই জেলমুক্তি।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ২০১৩ সালে সারদাকান্ডে প্রবল চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছিলো সারা ভারত জুড়ে। কোটি কোটি টাকা দুর্নীতিতে নাম জড়িয়েছিল এই চিটফান্ড কোম্পানীর। এই ঘটনার পরেই ভারত থেকে কার্যত নিশ্চিহ্ন হয়ে যায় একাধিক চিটফান্ড কোম্পানি গুলি।সারদা কাণ্ডে গ্রেফতার হয়েছিলেন সারদার মালিক সুদীপ্ত সেন এবং তাঁর সহযোগী দেবযানী মুখোপাধ্যায়।

সাধারণ রিসেপশনিস্ট থেকে সুদীপ্ত সেনের বদান্যতায় সারদার ডিরেক্টর হয়ে উঠেছিলেন দেবযানী। সুদীপ্ত সেনের সাথে তাঁকেও ২০১৩ সালে গ্রেফতার করেছিলো সিবিআই। এই সারদা মামলায় নাম জড়িয়ে গিয়েছিলো একাধিক তৃণমূল নেতার‌ও। সারদা মামলায় তিন বছর জেল খেটেছেন বর্তমান তৃণমূল মন্ত্রী মদন মিত্র।

আরও পড়ুন-নন্দীগ্রাম মামলায় জয় হবে কার? হাইকোর্টের রায়ের দিকে তাকিয়ে সকলেই।

অবশেষে দীর্ঘ আট বছর পরে জামিন মিললো দেবযানী মুখোপাধ্যায়ের। বাংলায় যে মামলাগুলো চলছে সেই মামলায় জামিন পেয়েছেন দেবযানী। তবে বাইরের রাজ্যের মামলাগুলি এখনো ঝুলছে তার গলায় যার দরুন এখনো তার জেল মুক্তি ঘটবে না বলে জানা গিয়েছে।পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও ভুবনেশ্বরে বেশকিছু মামলা রয়েছে দেবযানীর বিরুদ্ধে।

ওই মামলাগুলির জন্য আলাদা আলাদা ভাবে আবেদন করতে হবে দেবযানী মুখোপাধ্যায় এর আইনজীবীকে। এই আবহে যদি সিবিআই চায় তাহলে দেবযানীকে জেলেও রাখতে পারে। আজ কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল দেবযানীকে জামিন দিয়েছেন। তবে এই জামিনের বিরোধিতা করেছিলো সিবিআই।

আরও পড়ুন-মেহুল চোকসিকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠালো ডোমিনিকার আদালত।

সিবিআইকে রাজেশ বিন্দাল বলেন, “আপনাদের মধ্যে সব সময় দেখি মামলা পিছিয়ে দেওয়ার একটা প্রবণতা আপনাদের মধ্যে দেখা যায়। প্রায়শই আপনাদের মধ্যে এই প্রবণতা আমি লক্ষ্য করেছি।”বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল তারপর জানিয়েছেন এই মামলায় আপাতত জামিন পাচ্ছেন দেবযানী। যদিও তার বিরুদ্ধে সারদা থেকে হিসেব বহির্ভূত টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এই মামলা শুনানি হতে চলেছে আগামী সপ্তাহে বুধবার।