মুখ্যমন্ত্রীকে গোমাংস উপহার দেওয়ার ইচ্ছা। মহিলাকে জেলহাজতে পাঠাল অসম পুলিশ।

মুখ্যমন্ত্রীকে গোমাংস উপহার দেওয়ার ইচ্ছা। মহিলাকে জেলহাজতে পাঠাল অসম পুলিশ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা কে গোমাংস উপহার দেওয়ার মনবাসনা জানালেন এক মহিলা। এই অপরাধে তাকে জেলে পাঠানো অসম পুলিশ। সেই দিনই তিনি জামিন পেয়ে গিয়েছেন।

সম্প্রতি অসমে পাস হয়েছে গবাদি পশু সংরক্ষণ আইন। এই আইনে বলা হয়েছে যে জৈন, শিখ, হিন্দু সম্প্রদায়ের এলাকা অথবা কোন হিন্দু মন্দিরের পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে কোন রকম গো মাংস বিক্রি করা যাবে না। এই আইন পশু পাচার এবং গোমাংস বিক্রি উপরে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য জারি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

আরও পড়ুন-“সংসদের মর্যাদা বিরোধী কাজ করাই হল তৃণমূলের বহুদিনের পরম্পরা”- শান্তনু সেনকে কটাক্ষ জে পি নাড্ডার।

কিন্তু তার এই আইনের বিরোধিতা করতে শুরু করেছে অসমের সংখ্যালঘু সংগঠনগুলি।গত বুধবার অসমের নলবাড়ির বাসিন্দা ওই মহিলা তার হোয়াটসঅ্যাপ স্ট্যাটাসে একটি মৃত গরুর ছবি দিয়ে স্ট্যাটাসে লেখেন যে এই গরুর মাংস তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে উপহার দেবেন। সাথে সাথে তার এই স্ট্যাটাস প্রশাসনের কাছে পৌঁছে যায়।

আরও পড়ুন-“১৯৩০ সাল থেকেই মুসলিমদের সংখ্যা বাড়ানোর প্রবল চেষ্টা করা হচ্ছে”- মন্তব্য আর‌এস‌এস প্রধান মোহন ভাগবতের

‌ মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত মন্তব্য করার দরুন ওই মহিলার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। সাথে সাথে তাঁকে গ্রেপ্তার করে জামিন যোগ্য ধারায় মামলা করা হয়। সেদিনই তিনি জামিন পেয়ে গিয়েছেন।

ওই মহিলা হলেন অসমের প্রাক্তন বিজেপি নেতার মেয়ে। বহু মানুষ ওই মহিলার এই স্ট্যাটাসের প্রত্যন্ত নিন্দা করেছেন।