নিউজটেক নিউজপলিটিক্সরাজ্য

২০২০ তেই পুলিশের জেরার মুখে পড়েছিলো দেবাঞ্জন। জেরায় জানালো বিস্ফোরক তথ্য

নিজস্ব প্রতিবেদন: কসবার ভ্যাকসিন কান্ডে ধৃত দেবাঞ্জন দেবকে লাগাতার জেরা করে যাচ্ছেন তদন্তকারী অফিসাররা। প্রত্যেকবার জেরায় উঠে আসছে নানা বিস্ফোরক তথ্য । জানা গিয়েছে , পুরসভার টেন্ডার পাইয়ে দেওয়ার নামে কয়েকজন প্রোমোটারের সাথে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা করেছে দেবাঞ্জন। ওই প্রোমোটারদের সাথে কথা বলে তদন্তকারী অফিসাররা জানতে পেরেছেন যে, তিনজন প্রমোটারের কাছ থেকে ৪০ লক্ষ, ৩০ লক্ষ এবং ২৬ লক্ষ টাকা নিয়েছিলো দেবাঞ্জন।

সকলের চোখে নিজেকে সঠিক প্রমাণ করার জন্য দেবাঞ্জন কলকাতা পুরসভার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সাথে ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করেছিল। তারপরে সে একসময় কলকাতা পুরসভার অভ্যন্তরে নিজের জাল বিস্তার করতে সক্ষম হয়। ‌ প্রথমেই এক চিকিৎসক নেতার সাথে ঘনিষ্ঠতা তৈরি করে দেবাঞ্জন। নিজেকে কন্ট্রাক্টর পরিচয় দিয়েছিল প্রথমে সে ।

আরও পড়ুন-“রাজ্যে চালু হচ্ছে বাস। তবে বন্ধ‌ই থাকবে লোকাল ট্রেন”- ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

এই পরিচয় সে পুরসভার সমস্ত আধিকারিকদের সঙ্গে মোটামুটি একটা সম্পর্ক তৈরি করে।এবার জানা গিয়েছে আর একটি বিস্ফোরক তথ্য। চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে এক ব্যক্তি থেকে কয়েক লক্ষ টাকা নিয়েছিল দেবাঞ্জন।

তারপরেই তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ দায়ের হয় ইলেকট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানায়। তখন তাকে থানায় ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল পুলিশ। তখনই নাকি দেবাঞ্জনের পিতা জানতে পেরেছিলেন যে দেবাঞ্জন আইএএস অফিসার নন, তিনি নকল আইএএস অফিসার সেজে ঘুরে বেড়ান। কিন্তু নিজের সন্তানের এই কুকীর্তির কথা কাউকে বলতে পারেননি তারা।

আরও পড়ুন-দেবাঞ্জনের শিকার প্রোমোটাররাও। পুরসভার টেন্ডার পাইয়ে দেওয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়েছে প্রোমোটারদের কাছ থেকে।

ইতিমধ্যে দেবাঞ্জনের ছবিসহ তার অভিযানের বেশ কিছু খবর নাকি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল । রীতিমতো ভুয়ো আইএএস পরিচয় দিয়ে সে অভিযান চালাতো বিভিন্ন জায়গায়। কসবার অফিসটি সে ভাড়া নিয়েছিলো অশোক রায় নামক এক ব্যক্তির কাছ থেকে, এর জন্য নাকি সে মাসিক ৬৫ হাজার টাকা ভাড়া দিতো অশোক বাবুকে। গতকাল দেবাঞ্জনের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছেন তদন্তকারী অফিসাররা।

তার বাড়ি থেকে পাওয়া গিয়েছে তিনটি মোবাইল, পুরসভার জাল স্ট্যাম্প, একটি ল্যাপটপ, পাঁচটি হার্ডডিস্ক। তার হার্ডডিস্ক গুলো পরীক্ষা করছেন তদন্তকারী অফিসাররা।

Related Articles

Back to top button