নিউজটেক নিউজরাজ্য

৩০ শে জুন থেকে রাজ্যে চালু হতে চলেছে পড়ুয়াদের জন্য ক্রেডিট কার্ড লোন

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে পশ্চিমবঙ্গে জয়জয়কার তৃণমূল কংগ্রেসের। ২১৩ টি আসন নিয়ে আবার তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি প্রথম থেকে প্রবল হবে চেষ্টা করেছিল নবান্নকে নিজেদের দখলে আনার। বিজেপির স্টার প্রচারকরা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা দিনের পর দিন বাংলার মাটিতে ব্যাপকভাবে প্রচার করেছেন, রোড শো করেছেন, কিন্তু তা সত্ত্বেও বাংলার মানুষের বিশ্বাস অর্জনে অসমর্থ হয়েছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা।

ভরাডুবি ঘটেছে বিজেপির। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মুখ্যমন্ত্রীর বাংলার মানুষের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন প্রচার সভা থেকে দেওয়া জনমোহিনী প্রতিশ্রুতি গুলি এবারে তৃণমূলকে জয়ের মুখ দেখতে অনেকটাই অনুকূল পরিস্থিতি এনে দিয়েছে।ভোটের প্রচারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্যতম জনমোহিনী প্রতিশ্রুতি গুলি ছিলো, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড, দুয়ারে রেশন, মা বোনেদের মাসিক হাতখরচ। ভোটে জিতেই আপাতত দুয়ারে রেশন পরীক্ষামূলক ভাবে শুরু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন-“কসবায় ভুয়ো ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পে দেওয়াই হয়নি করোনার ভ্যাকসিন”- দাবি পুরসভার ডেপুটি সিএম‌ওএইচের

তবে তিনি ঘোষণা করেছেন যে আধার কার্ডের সাথে রেশন কার্ড লিঙ্ক হলে তবেই এই পরিষেবা পাবেন রাজ্যবাসী।এবার আরেকটি প্রতিশ্রুতি মাফিক প্রকল্প শুরু করতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী এমনটাই ঘোষণা করেছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী স্টুডেন্টস্ ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের কথা বলেছিলেন‌ । এই প্রকল্পে পড়ুয়াদের সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হবে।

এর জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের কোনো মর্টগেজ রাখতে হবে না। রাজ্য সরকার নিজেই গ্যারান্টার হবে। এর ফলে ছাত্রছাত্রীরা লোন নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ পেতে পারবেন।মুখ্যমন্ত্রী গতকাল ঘোষণা করেছে যে, “খুব শীঘ্রই নতুন স্টুডেন্টস্ ক্রেডিট কার্ডের লোন পাবেন ছাত্রছাত্রীরা।

আরও পড়ুন-“এখন লোকাল ট্রেন চালালে দুনিয়ার লোকের করোনা হবে”- যাত্রী বিক্ষোভ প্রসঙ্গে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই মর্মে ছাড়পত্র দিয়েছে মন্ত্রীসভা। ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত এই ক্রেডিটের সুবিধা পাওয়া যাবে। এই ক্রেডিটের গ্যারান্টার হবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। এই লোন পেতে গেলে ছাত্রছাত্রীদের কমপক্ষে দশ বছর পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।

চাকরি পাওয়ার পর আগামী ১৫ বছরের মধ্যে এই লোন শোধ করতে হবে। যাতে চাকরি পাওয়ার আগেই এই লোন পড়ুয়ারা পেতে পারে তার জন্য সর্বসম্মতভাবে চেষ্টা করবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।”

Related Articles

Back to top button