“কেন্দ্রীয় সরকারের গাফিলতির জন্য রাজ্যে করোনা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।”- বললেন মুখ্যমন্ত্রী

“কেন্দ্রীয় সরকারের গাফিলতির জন্য রাজ্যে করোনা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।”- বললেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্যে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে করোনার সংক্রমণ। এই মহামারি প্রতিদিনই প্রাণ কাড়ছে অসংখ্য মানুষের। এর‌ই মধ্যে অনেকেই একুশের ভোটে বাংলার বুকে একের পর এক জনসভা, মোটর বাইক র‌্যালি , নেতাদের র‌্যালিকে বাংলায় করোনা ছড়িয়ে পড়ার মূল কারণ হিসাবে তুলে ধরেছেন। নির্বাচন কমিশন রাজ্যে যে কোনোরকম বড়ো জনসভা, বাইক র‌্যালি, মিছিলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে কমিশন জানিয়েছে, কড়াভাবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে, ৫০০ জন ব্যক্তিকে নিয়ে জনসভা করা যেতে পারে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের শোচনীয় পরিস্থিতির জন্য প্রথম থেকেই কেন্দ্রীয় সরকারকে দায়ী করে এসেছেন। তিনি কর্মীসভা থেকে বলেছেন,“কেন্দ্রীয় সরকার কোনরকম সহযোগীতা করছে না। তা সত্ত্বেও আমরা কাজ করে চলেছি যাতে সাধারণ মানুষের কোন অসুবিধা না হয়। ইলেকশন‌ও চলবে এবং আমাদের কাজটাও চলবে। ইলেকশন কমিশনের লক্ষ্য একটাই যে কিভাবে তৃণমূলকে শেষ করা যায়।

আরও পড়ুন-পশ্চিমবঙ্গের বুকে বাতিল হল অমিত শাহের সমস্ত জনসভা

আমি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করছি সমস্ত মানুষকে বিনা পয়সায় ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য। আমি নিজে রাজ্যবাসীকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেবো। ২০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে অনেক ভ্যাকসিন চলে আসবে। পিএম কেয়ার্স ফান্ডে লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা রয়েছে। সেখান থেকে ২০ হাজার কোটি টাকা বাংলাকে দিতে পারছে না কেন্দ্র। আজ শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় সরকারের গাফিলতির জন্য দেশের মধ্যে করোনা এত ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। মানুষের মধ্যে অক্সিজেন নিয়ে হাহাকার পড়ে গিয়েছে। আমাদের সকলকে এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারবে।”