করোনা চিকিৎসায় রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়। যোগী আদিত্যনাথের হস্তক্ষেপে রোগীদের থেকে নেওয়া অতিরিক্ত টাকা ফেরালো হাসপাতাল।

করোনা চিকিৎসায় রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়। যোগী আদিত্যনাথের হস্তক্ষেপে রোগীদের থেকে নেওয়া অতিরিক্ত টাকা ফেরালো হাসপাতাল।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা ভারত জুড়ে প্রবল সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছে করোনাভাইরাস। এই ভাইরাসের প্রভাবে একের পর এক মানুষের মৃত্যু ঘটছে অকালে। কিন্তু এই ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেও নজিরবিহীনভাবে মনুষ্যত্বকে বিকিয়ে দিয়ে লাভের কড়ি গুনতে ব্যস্ত বেশ কিছু মানুষরূপী পিশাচের দল । যে সময় বহু মানুষ এগিয়ে এসেছেন আর্তের সেবায়, এই পরিস্থিতিতে আবার বেশ কিছু পিশাচ অসহায় মানুষের কাছ থেকে অসহায়তার সুযোগে ফায়দা লুটে নিচ্ছেন।অনেক জায়গাতেই দেখা গিয়েছে করোষা রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য অথবা হাসপাতাল থেকে সুস্থ ব্যক্তিদের বাড়ি নিয়ে যাওয়ার জন্য লাগামছাড়া দর হাঁকছেন অ্যাম্বুলেন্স চালকরা।

আরও পড়ুন-করোনার দাপটে এবং ইয়াসের আবহে আগুন পিঁয়াজের বাজারে। মাথায় হাত মধ্যবিত্তের।

আবার মৃত করোনা রোগীদের শ্মশানে পৌঁছে দিতে ইচ্ছামতো টাকা চাইছে অ্যাম্বুলেন্স চালকরা। এছাড়াও বেশ কিছু হাসপাতাল করোনা চিকিৎসার নাম করে রীতিমতো লুঠতরাজ চালাচ্ছে হাসপাতাল গুলিতে।ঠিক এরকমই ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বুকে। এমনিতেই উত্তরপ্রদেশের হাসপাতাল গুলিতে করোনার চিকিৎসার জন্য নির্দিষ্ট অংক বেঁধে দেওয়া হয়েছে। যেমন আইসোলেশনে যারা ভর্তি রয়েছেন সেই সমস্ত আক্রান্ত রোগীদের থেকে নেওয়া হবে দৈনিক ৪ হাজার ৮০০ টাকা।

আরও পড়ুন-রাজ্যের কোভিড ভ্যাকসিনের শংসাপত্রে থাকতে চলেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি।

ভেন্টিলেটরে যারা থাকবেন তাদের থেকে নেওয়া হবে দৈনিক ৯ হাজার টাকা।আইসিইউতে যারা থাকবেন তাঁদের থেকে নেওয়া হবে দৈনিক ৭ হাজার ৮০০ টাকা। কিন্তু এর পরেও উত্তরপ্রদেশের বেশকিছু হাসপাতাল রোগীদের থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করছিল বলে অভিযোগ উঠেছিল। এই ব্যাপারে সরাসরি হস্তক্ষেপ করেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ । মেরঠ প্রশাসনের কাছে এই সংক্রান্ত দুটি অভিযোগ জমা পড়েছিল। তারপরেই পাঁচটি হাসপাতালকে নির্দেশ দেওয়া হয় যে অতিরিক্ত অর্থ ফিরিয়ে নিতে এবং কড়াভাবে সরকারি নির্দেশিকা মেনে চলতে। তারপরেই ৬৪ টি হাসপাতাল রোগীদের থেকে আদায় করা অতিরিক্ত অর্থ ফিরিয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।