টেক নিউজনিউজরাজ্য

লাগাতার ধর্ষণ ১৪ বছরের কিশোরীকে। সন্তানের জন্ম দিলো কিশোরী। গ্রেফতার ষাটোর্ধ্ব প্রৌঢ়

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভয় দেখিয়ে দিনের পর দিন চলতো ধর্ষণ। লাগাতার ধর্ষণের ফলে সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়ে ১৪ বছরের কিশোরী। একটি পুত্রসন্তানের জন্ম দেয় সে। ভয় দেখিয়ে এই কুকীর্তি করার দায়ে গ্রেফতার করা হল ষাটোর্ধ্ব এক প্রৌঢ়কে।

ঘটনাটি ঘটেছে বনগাঁর অন্তর্গত গোপালনগর থানা এলাকায়। অভিযুক্ত সইফুল্লা মুন্সি মন্ডলকে গ্রেফতার করেছে গোপালনগর থানার পুলিশ। জেরায় নিজের এই নারকীয় কুকীর্তির কথা স্বীকার করে নিয়েছে স‌ইফুল্লা।জানা গিয়েছে ওই নিগৃহীতা কিশোরী অভিযুক্ত স‌ইফুল্লার সম্পর্কে নাতনি হয়।

আরও পড়ুন-টানা বৃষ্টিতে চারদিন ধরে জলমগ্ন ঘাটালের বিস্তীর্ণ এলাকা।

কিন্তু এই ধরণের পাশবিক মানসিকতা সম্পন্ন মানুষের কাছে কোনো সম্পর্কের কোনো গুরুত্ব নেই। এদের কাছে নারী মানেই যৌন লালসা মেটানোর ভোগ্যবস্তু। এই ধরণের বিকৃত মানসিকতা সম্পন্ন মানুষের উপস্থিতি থাকার দরুণ‌ই সমাজে বহু জায়গায় নারীদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে।জানা গেছে প্রায় নয় মাস আগে নানা প্রলোভন দেখিয়ে প্রথম ওই ১৪ বছর বয়সী কিশোরীকে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত স‌ইফুল।

ক্রমাগত হুমকির ভয়ে এবং লোকলজ্জায় ওই কিশোরী তার উপর হ‌ওয়া অত্যাচারের কথা কাউকে বলতে পারেনি। যার ফলে আবার ক্রমাগত দিনের পর দিন কিশোরীকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করতে থাকে অভিযুক্ত স‌ইফুল। কিন্তু ক্রমশ‌ই ওই কিশোরী ধর্ষণের ফলে সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়ে। মেয়ের শারীরিক পরিস্থিতি দেখে তার বাবা মে প্রথমে ভেবেছিলেন মেয়ে হয়তো পেটের সমস্যায় ভুগছে।

আরও পড়ুন-একরত্তি শিশু ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনা থেকে বাঁচিয়ে দিল ক্যানিং লোকালকে।

কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে বোঝা যায় যে মেয়েটি আসন্নপ্রসবা। তখন মেয়ে সমস্ত কিছু খুলে বলে তার বাবা মা’কে। এরপরেই গোপালনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করে কিশোরীর পরিবার। অভিযোগ পেয়ে সাথে সাথে অভিযুক্ত স‌ইফুল্লাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এই ঘটনায় গোটা এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসী অভিযুক্ত স‌ইফুল্লার কঠিন শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছে।

Related Articles

Back to top button