শীতলকুচি কান্ডে প্রাক্তন পুলিশ সুপার দেবাশীষ ধরের মোবাইল বাজেয়াপ্ত করলো সিআইডি।

শীতলকুচি কান্ডে প্রাক্তন পুলিশ সুপার দেবাশীষ ধরের মোবাইল বাজেয়াপ্ত করলো সিআইডি।

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতলকুচি কান্ডে উত্তপ্ত হয়েছিলো সারা বাংলা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের ঘেরাও করে আক্রমণ করার অভিযোগে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা গুলি চালিয়েছিলো যার দরুন প্রাণ গিয়েছে ৪ তৃণমূল সমর্থকের। শীতলকুচির জোড়পাটকি গ্রামের ১২৬ নম্বর বুথে এই ঘটনার পরেই সারা রাজ্য জুড়ে কালা দিবস পালন করেছে তৃণমূল। ‌ এই ঘটনাকে ঘিরে ক্রমেই পারদ চড়েছে বঙ্গ রাজনীতিতে।

বর্তমানে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সিআইডি। কোচবিহারের এই ঘটনার সময় তৎকালীন প্রাক্তন পুলিশ সুপার দেবাশীষ ধরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিআইডি। গতকাল তাকে তদন্তকারীরা আবার জেরা করেন। ‌ জেরাতে কিছুটা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন প্রাক্তন পুলিশ সুপার।

আরও পড়ুন-কেএমসির নাম ভাঙিয়ে ভ্যাকসিন জালিয়াতির শিকার হলেন মিমি চক্রবর্তী।

তিনি বলেছেন যে, কোচবিহারে ওই বুথে গুলি চালানোর বুথ ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন সিআইএসএফ জওয়ানরা। কিন্তু তিনি এই বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানাতে ভুলে গিয়েছিলেন। একজন উচ্চ পদস্থ অফিসার কিভাবে এই ঘটনার কথা জানাতে ভুলে যান এর উত্তরে দেবাশীষ ধর বলেছেন যে, উনার ভুল হয়ে গিয়েছে উনি রাতে মৌখিকভাবে ডিজি এবং এডিজি আইন-শৃঙ্খলা কে সেই বিষয়ে জানিয়েছিলেন । দেবাশীষ ধর বলেছেন, ‘ওইদিন বুথে দুটি গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছিল যাতে সিআইএসএফ‌’ই জড়িত রয়েছে , তাই একটাই এফআইআর করা হয়েছিলো।’

আরও পড়ুন-“রেশন কার্ডের সাথে আধার লিঙ্ক হলে তবেই পাবেন দুয়ারে রেশন।”- ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর।

এছাড়া দেবাশীষ ধরের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনটি বাজেয়াপ্ত করেছে সিআইডি। শীতলকুচিতে আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়েছিল সিআইএসএফ এর জওয়ানরা এমনটাই বয়ান দিয়েছিলেন দেবাশীষ ধর। ওই দিন তিনি কার কার সাথে কথা বলেছিলেন এবং সেই দিনের আগে বা পরে তার ব্যক্তিগত ফোনে কারা কারা ফোন করেছিলেন সেই সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখতে তার এই ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে সিআইডি। তিনি কার নির্দেশে বলেছিলেন যে সিআইএস‌এফ আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়েছে সেই সমস্ত কিছু তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন সিআইডি আধিকারিকরা।