নিউজপলিটিক্স

কিষান সম্মান নিধি নিয়ে সংঘাতের আবহে প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিভিন্ন ইস্যুতে প্রায়শই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে থাকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। এবার আবার সংঘাতের পথে হাঁটছে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার। জানা গেছে কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষক সম্মান নিধি প্রকল্প নিয়ে সংঘাত বেঁধে গিয়েছে কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারের মধ্যে। রাজ্যের পাঠানো প্রায় কয়েক লক্ষ কৃষকের নাম এই তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ‌

এই অভিযোগ পেয়ে যথেষ্ট ক্রোধান্বিত হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন যে তিনি এই মর্মে খুব শীঘ্রই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে পর্যালোচনা করতে পারেন।একুশের ভোটে প্রধানমন্ত্রীসহ বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বরা বাংলায় প্রচারে এসে কিষান সম্মান নিধি যথেষ্ট গুরুত্ব ফলাও করে বলেছিলেন। ‌ তিনি বলেছিলেন যে একুশের ভোটে ক্ষমতায় এলে অথবা না এলেও রাজ্যের সমস্ত কৃষককে কৃষক সম্মান নিধি তালিকায় তিনি অন্তর্ভুক্ত করবেন।

আরও পড়ুন-তাঁর বাড়িতে মধ্যহ্নভোজ সেরেছিলেন অমিত শাহ। কিন্তু কঠিন পরিস্থিতিতে ভ্যানচালকের পাশে দাঁড়ালো রাজ্য সরকার‌ই

সেইমতো একুশের ভোটে তৃণমূল বাংলায় তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করার পরেই কেন্দ্রীয় সরকার কৃষক সম্মান নিধি প্রকল্পের টাকা দিতে শুরু করে দিয়েছে কৃষকদের। প্রথমবারের সমস্ত কৃষকদের অন্তর্ভুক্তিকরণ না করা হলেও দ্বিতীয়বারের কৃষকদের অন্তর্ভুক্তিকরণের সুযোগ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু জানা গিয়েছে এই প্রকল্পের জন্য কেন্দ্রের কাছে প্রায় সাড়ে ৪৬ লক্ষ কৃষকের নাম প্রেরণ করেছিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। কিন্তু এই নামের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার প্রায় সাড়ে ৯ লক্ষ কৃষকের নাম বাদ দিয়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুন-আবার বাংলায় কৈলাস বিজয়বর্গীয়। রাজ্যে নেওয়া হল তিন যাত্রার সিদ্ধান্ত।

একজন কৃষকের নাম একসাথে কেন বাদ দেওয়া হয়েছে সেই মর্মে এখনো কোনো সদুত্তর দেয়নি কেন্দ্রীয় সরকার। যার জন্য যথেষ্ট ক্ষুদ্ধ হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি কেন্দ্রের কাছে জানতে চেয়েছেন যে এইভাবে কোনো কারণ না দেখিয়ে এত জন কৃষকের নাম প্রকল্প থেকে কেন বাদ দেওয়া হয়েছে। ‌ তিনি এই ঘটনার সঠিক ব্যাখ্যা চেয়ে চিঠি লিখতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে প্রধানমন্ত্রী দপ্তর থেকে যদি প্রত্যুত্তর না আসে তাহলে তিনি নিজেই প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলবেন।

Related Articles

Back to top button