নিউজবিনোদনরাজ্য

স্বাতীলেখা সেনগুপ্তর প্রয়াণে শোকবার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলা সিনেমা জগতে আবার নক্ষত্র পতন। গতকাল পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে চলে গিয়েছেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত । সত্যজিৎ রায়ের নায়িকা ছিলেন তিনি। কয়েক বছর আগেই সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বিপরীতে তাঁর সুদক্ষ অভিনয় সাড়া ফেলে দিয়েছিল বাংলা সিনেমা জগতে।

সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি নাটকেও সমানভাবে অভিনয় করেছেন। বিখ্যাত নাট্য গ্রুপ ‘নান্দীকার’ এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন তিনি। নাটকের মঞ্চে তার সুদক্ষ অভিনয় কেউ ভুলবে না। বাংলা সিনেমা জগতে তিনি স্বর্ণাক্ষরে নিজের নাম লিখে গিয়েছেন।

আরও পড়ুন-দেখে নিন নীল-তৃণা, অনীক ধর সহ তারকাদের জামাইষষ্ঠীর মূহূর্ত

সত্যজিৎ রায়ের সিনেমা ‘ঘরে বাইরে’ মুক্তি পেয়েছিলো ১৯৮৪ সালে। এই সিনেমায় নায়িকার ভূমিকায় স্বাতীলেখার অভিনয় সকলের নজর কেড়েছিলো। তারপর ‘বেলাশেষে’ সিনেমাতেও অভিনয় করেছিলেন তিনি।জানা গিয়েছে বেশ কিছুদিন ধরেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।

বাইপাসের এক বেসরকারি হাসপাতালে গত ২৫ দিন ধরে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। গতকাল হঠাৎ কিডনি বিকল হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন এই খ্যাতনামা অভিনেত্রী। ওই বেসরকারি হাসপাতালেই গতকাল প্রয়াত হন তিনি। কিন্তু তিনি করোনার গ্রাসে পড়েননি বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন-“আমার অভিনয় জীবন শুরু হয়েছে উনার সাথে।”- স্বাতীলেখা দেবীর স্মৃতিচারণায় বললেন নাট্যব্যক্তিত্ব দেবশঙ্কর হালদার

মৃত্যুকালে এই অভিনেত্রীর বয়স হয়েছিলো ৭১ বছর।অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, “বিশিষ্ট অভিনেত্রী স্বাতীলেখা সেনগুপ্তের প্রয়াণে আমি গভীরভাবে শোকাহত হয়েছি। তিনি আজ কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন।

তাঁর বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। নাটকের মাধ্যমে তাঁর অভিনয় জীবনের শুরু হয়েছিলো। সত্যজিৎ রায়ের ‘ঘরে বাইরে’ ছবিতে তাঁর সুদক্ষ অভিনয় দর্শকরা সারা জীবন মনে রেখে দেবেন। স্বাতীলেখা সেনগুপ্তের অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র গুলি হল বেলা শেষে, বরফ, ধর্মযুদ্ধ প্রভৃতি।

আরও পড়ুন-আবার নক্ষত্রপতন। প্রয়াত হলেন সত্যজিৎ রায়ের নায়িকা স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।

তিনি সংগীত নাটক অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড, ওয়েস্টবেঙ্গল থিয়েটার জার্নালিস্টস্ অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড এবং আরো বিবিধ সম্মানে সম্মানিত হয়েছেন। তাঁর প্রয়াণে অভিনয় জগতে এক বিরাট শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে। তাঁর স্বামী রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত এবং কন্যা সোহিনী সেনগুপ্ত সহ অগণিত অনুরাগীদের আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।”

Related Articles

Back to top button