Breaking- সুশান্তের মৃত্যুর পর সামনে এলো আরেক চাঞ্চল্যকর তথ্য, দিদিকে নিজের হাতে চিঠি লিখেছেন সুশান্ত, রইলো সেই চিঠি

অনেক অভিমান, অনেক গ্লানি নিয়ে পৃথিবী ছেড়েছেন সুশান্ত।‌ পারেননি কঠিন বাস্তবের কুঠারাঘাত সহ্য করে, লড়াই করে বেঁচে থাকতে। পাড়ি দিয়েছেন না ফেরার দেশে। তাঁর আকস্মিক এই হঠকারী সিদ্ধান্ত কাঁদিয়েছে আপামর জনসাধারণকে। তাঁর স্মিত হাসিটাকে মিস করছেন প্রতিটি মানুষ। ২০১৩ সালে বড়ো পর্দায় প্রথম পা রেখেছিলেন এই সদাহাস্যময় মহান মনের মানুষটি। তাঁর কেরিয়ারের দিকটিও খুব একটা অনুজ্জ্বল ছিলোনা।

আরও পড়ুন-ব্রেকিং- অবশেষে ফাইনাল ইয়ারের সেমিস্টারের লিখিত পরীক্ষা বাতিল করার পথে হাঁটলো বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়!

অনেক সংগ্রাম করে সাফল্যের মুখ দেখেছিলেন তিনি। তাঁর বেশীরভাগ সিনেমাতেই জীবনের জয়গান গাওয়া হয়েছে। কিন্তু এই মানুষটিই হেরে গেলেন তাঁর জীবনের সংগ্রামে।এই প্রতিভাবান নায়কের অবিবেচনাপ্রসূত সিদ্ধান্ত কেউই মেনে নিতে পারছেন না। এখনও তাঁর স্মৃতিবিজড়িত অনেক কিছুই সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হয়ে চলেছে। সুশান্তের বোন শ্বেতা কীর্তি। তিনি আমেরিকার বাসিন্দা। তাঁকে চিঠি লিখেছিলেন সুশান্ত। সেই চিঠি শ্বেতা শেয়ার করেছেন তাঁর ইন্সটাগ্রাম হ্যান্ডেলে।

আরও পড়ুন-এশিয়ার বৃহত্তম সোলার প্ল্যান্টের উদ্বোধন করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী


সেখানে সুশান্ত লিখেছিলেন, “সে যে কিনা বলে সে করতে পারবে , এবং সে যে বলে এটা সে পারবে না। দুজনেই তাদের স্থানে সঠিক। তুমিই সেই প্রথমজন। ভালোবাসা র‌ইলো। ভাই সুশান্ত !”এই চিঠিটি শ্বেতা শেয়ার করেছেন ইন্সটাগ্রামে। সেখানে শ্বেতা লিখেছেন যে, “আমার বাচ্চা, আমার বাবু, তুমি আমাদের মধ্যে উপস্থিত নেই। কিন্তু আমি জানি তুমি অনেক যন্ত্রণার মধ্যে ছিলে, তুমি অসমসাহসী যো-দ্ধা ছিলে । ক্ষমা করে দিও সো-না।

আরও পড়ুন- একে নিন্মচাপের জের, তার ওপর পূর্ণিমায় ফুঁসছে দিঘা, উপচে পড়ছে বৃহৎ আকারের ঢেউ, সেই জলের তোড়ে ভেসে এল মৃ’তদেহ


যদি পারতাম তোর সমস্ত কষ্ট কেড়ে নিয়ে শুধুমাত্র তোকে আনন্দ দিতে। তোমার দুটি চোখ পৃথিবীর মানুষকে দেখিয়েছে কিভাবে স্বপ্ন দেখতে হয়। আমরা তোমাকে সবসময়ই ভালোবাসবো। যেখানেই থেকো সুখে থেকো।”
শ্বেতার ইন্সটাগ্রামে এই পোস্ট দেখে চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি কেউই।

এখানে আপনার মতামত জানান