নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“বিজেপি – তৃণমূল এক নয়”- অফিসিয়ালি ঘোষণা আলিমুদ্দিনের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটের আগে রাজ্যে প্রচারে তৃণমূল এবং বিজেপিকে ‘বিজেমূল’ বলে কটাক্ষ করেছিলো সিপিএম। আইএস‌এফ এবং কংগ্রেসের সাথে জোট করেও রাজ্যে বামফ্রন্ট বিধ্বস্ত হয়েছে। এর আগেই সিপিএম নেতৃত্ব স্বীকার করে নিয়েছিলো যে ‘বিজেমূল’ তত্ত্বটি বাংলার মানুষ ভালোভাবে গ্রহণ করেনি। এবার অফিসিয়ালি বামফ্রন্ট ঘোষণা করলো যে তৃণমূল এবং বিজেপি এক নয়।

আগামী ৫ ই আগস্ট হল সিপিএম পার্টি তৈরি করার ক্ষেত্রে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনকারী মুজফফর আহমেদের জন্মদিন। এই দিনটি বামকর্মীদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়। প্রতি বছরের ন্যায় আগামী ৫ ই আগস্টের দিনটি মুজাফফর আহমেদ কে শ্রদ্ধার সাথে সম্মান জানাবে সিপিএম নেতৃত্ব। এই কর্মসূচি উপলক্ষে প্রতিটি জেলা সিপিএম নেতৃত্বের কাছে একটি নোটিশ পাঠানো হয়েছে, যে নোটিশে বিজেমূল তত্ত্ব যে সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিতে ভরা ছিলো, তাতে অফিশিয়ালি সিলমোহর দিয়েছে সিপিএম নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন-মহার্ঘ ভাতা ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

উক্ত নোটে সিপিএম নেতৃত্ব লিখেছে,”বর্তমানে তৃণমূলের এবং বিজেপির বিষয়ে পার্টির অবস্থান নিয়ে বেশ কিছু স্লোগান বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতির উদ্রেক করেছে। পার্টির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিজেপি এবং অন্য কোনো রাজনৈতিক দল কখনো এক নয়, কারণ বিজেপির পরিচালনা ক্ষমতা রয়েছে ফ্যাসিবাদী আরএসএসের হাতে। তাই নির্বাচনী আবহে তৃণমূল এবং বিজেপিকে সমান বলায় বেশ কিছু বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে।”তবে কানাঘুষো চলছে যে সংযুক্ত মোর্চার আগামী দিনগুলো অনেকটাই অন্ধকারে প্রোথিত হতে চলেছে।

আরও পড়ুন-“রাজনীতি ছেড়ে দিলেও সাংসদ পদে থাকছি।”- বললেন বাবুল সুপ্রিয়।

এমনিতেই আইএস‌এফের সাথে জোট করায় দলেই যথেষ্ট সমালোচনার মুখে পড়েছে সিপিএম নেতৃত্ব। আবার কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী এই জোটের অবস্থান নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। তবে সিপিএম নেতৃত্ব জানিয়েছে তারা সংযুক্ত মোর্চা থেকে সরে আসবে না।

Related Articles

Back to top button