বিজেপি-তৃণমূল সং’ঘ’র্ষে রণক্ষেত্র হালিশহর এলাকা, ভে’ঙে গু’ড়িয়ে দেওয়া হল বিজেপি নেতা অর্জুন সিংয়ের গাড়ি

কখনো বিজেপি নেতাদের উস্কানিতে আবার কখনও তৃণমূল নেতাদের উ-স্কা-নিতে দুই দলের মধ্যে রাজনৈতিক হিংসা ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে বাংলায়। গত লোকসভা ভোট থেকে তৃণমূলের সমান্তরালভাবে একটি শক্তিশালী দল হিসেবে বাংলায় আ-ত্মপ্রকাশ করে বিজেপি। একটি খাপে যেমন দুটি ত-রো-য়া-ল থাকতে পারে না ঠিক তেমন ভাবেই তৃণমূল এবং বিজেপি দলের সদস্যদের মধ্যে একাধিকবার সং-ঘর্ষ ঘটে চলেছে।

আর অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এই সং-ঘর্ষের প্রতিদান দিচ্ছে কিছু অরাজনৈতিক সাধারণমানুষ। রবিবার গুরু পূর্ণিমার দিনে উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহরে সাধারণ মানুষকে যথেষ্ট আতঙ্কে ফেলে বিজেপি এবং তৃণমূল দলের গোষ্ঠী সদস্যদের মধ্যে সং-ঘর্ষ শুরু হলো। রবিবার সন্ধ্যেয় উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহরে বিজেপির দলীয় কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ অর্জুন সিং।

আরও পড়ুন – দুধে জল মেশানো আছে কি না বুঝবেন কিভাবে? জেনে নিন একটি সহজ উপায়

অপরদিকে হালিশহরে একই দিনে দলীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছিলেন তৃণমূল নেতা সুবোধ অধিকারী।প্রশাসন সূত্রে খবর প্রথমে সুবোধ বাবুর অনুগামী তৃণমূল কর্মীরা অর্জুন সিং এর গাড়ি এবং বিজেপি কর্মীদের গাড়ির উপর হা-ম-লা করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আবার অর্জুন সিং এর নেতৃত্বাধীন বিজেপি কর্মীরা তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেন।

ফলে স্বভাবতই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। তৃণমূল কংগ্রেস বলছে বিজেপি দোষী আমরা সম্পূর্ন “ধোয়া তুলসী পাতা” আবার বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস দোষী আমরা সম্পূর্ন “ধোয়া তুলসী পাতা”। আর দুই দলই দাবী করছে যে জনগণ তাদের পক্ষে আছে। তাদের প্রতি হা-ম-লা দেখে জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে প্র-তি-বা-দ করে।

আরও পড়ুন – একে নিন্মচাপের জের, তার ওপর পূর্ণিমায় ফুঁসছে দিঘা, উপচে পড়ছে বৃহৎ আকারের ঢেউ, সেই জলের তোড়ে ভেসে এল মৃ’তদেহ

আর জনগণ দুই রাজনৈতিক গোষ্ঠীর মধ্যে সং-ঘর্ষের সময় যারা কোনরকম রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত নয় তাদেরকে রীতিমতন প্রাণ বাঁচিয়ে থাকতে হয়। হালিশহরের এর বিভিন্ন প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ান দুই দলের সংঘর্ষের মধ্যে রীতিমতন বোমাবাজি চলে। যদিও পুলিশ বা প্রশাসনের তরফ থেকে বোমাবাজির কোন রকম কথা অস্বীকার করা হয়েছে।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি নেতা অর্জুন সিংহ বলছেন “বিজপুরের তৃণমূল নেতা সুবোধ অধিকারীর নেতৃত্বে তৃণমূল আশ্রিত একদল দু-ষ্কৃ-তী তার গাড়িতে ভা-ঙ-চু-র চালিয়েছে। আমি দলীয় কর্মীর বাড়িতে মিটিং করছিলাম তখন আমার গাড়িতে তৃণমূল নেতা সুবোধ অধিকারী তার গু-ন্ডা বাহিনী নিয়ে চড়াও হয় আর আমার গাড়ি ভা-ঙ-চু-র করে।

আরও পড়ুন – বদলে গেলো গ্যাস বুকিং এর নিয়ম, এবার চালু হচ্ছে OTP , এছাড়াও বদলাচ্ছে বেশ কিছু নিয়ম

সেই সঙ্গে আমাদের দলীয় কর্মীদের বাইক ও আমার সঙ্গে থাকা বাকি গাড়ি গু-লোও ভেঙে দিয়েছে। এমনকি আমাদের কর্মীদের উদেশ্য করে বো-মা ও গু-লিও ছোরা হয় সেই সময়।” অপরদিকে তৃণমূল নেতা সুবোধ অধিকারী পাল্টা অভিযোগ করেন যে ” আজকে বিজেপি থেকে আসা বেশকিছু কর্মীরা আমাদের দলে যোগদানের কর্মসূচি ছিলো।

সেখানে প্রচুর কর্মীরা বিজেপি ছেড়ে আমাদের দলে যোগদান করছিল। আর তাতেই হতাশ হয়ে বিজেপি আশ্রিত দু-ষ্কৃ-তী রা আমাদের দলীয় কার্যালয় ভা-ঙচু-র করে আ-গু-ন ধরিয়ে দেয়, আর সেই সময় আমার গাড়িতেও হা-ম-লা করে।”

এখানে আপনার মতামত জানান