“ভ্যাকসিন তো আর রসগোল্লা নয় যত পারবে তৈরি করবে”- মমতার চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বললেন বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য

“ভ্যাকসিন তো আর রসগোল্লা নয় যত পারবে তৈরি করবে”- মমতার চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বললেন বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশের মধ্যে সন্ত্রাসের কালো রাজত্ব চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস। পশ্চিমবঙ্গের মাটিতে একদিকে করোনার আক্রমন আবার অপরদিকে একুশের ভোটে রাজনৈতিক জনসভাগুলোতে বিপুল জনজোয়ার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ‌ বাংলার মাটিতে ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে করোনাভাইরাস। কিন্তু এই পরিস্থিতির মধ্যেও রাজনৈতিক জনসভা অব্যাহত রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের বুকেও ভয়াবহ সন্ত্রাস চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস।

এখনো পর্যন্ত এই ভাইরাসের কবলে পড়েছেন ৬ লক্ষ ৭৮ হাজার ১৭২ জন। এই ভাইরাস প্রাণ নিয়েছে ১০ হাজার ৬৫২ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৬ লক্ষ ৯ হাজার ১৩৪ জন। এই আবহে গতকাল সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে একটি কড়া চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই চিঠিতে তিনি লিখেছেন যে, “১৮ বছরের ঊর্ধ্বে ভ্যাকসিন দেওয়ার এই সিদ্ধান্তে অনেক দেরি করলো কেন্দ্র।

আরও পড়ুন-“শুধু কথা আর‌ কথা, ভ্যাকসিন কোথায়?”- প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ শেষ হতেই টুইটারে আক্রমণ ডেরেক ও’ ব্রায়নের

এখন পরিস্থিতি বুঝে গা বাঁচানোর চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকার।” এর আগেও গত ২৪ শে মার্চ একটি চিঠি প্রধানমন্ত্রী কে লিখেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর মুখ্যমন্ত্রীর এই চিঠির কোন উত্তর দেয়নি বলে জানা গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার বলেছেন যে কেন্দ্রীয় সরকার পর্যাপ্ত টীকার যোগান দিচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে।

এরপরেই প্রধানমন্ত্রী কে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।মুখ্যমন্ত্রীর এই চিঠির প্রসঙ্গে বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, “ভারতের গণতান্ত্রিক আবহে কেন্দ্রের নীতির সমালোচনা করে অবশ্যই চিঠি দিতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। ‌ কিন্তু তার এই বিষয়টি মনে রাখা দরকার যে ভ্যাকসিন রসগোল্লা নয় যে যত খুশী তত তৈরি করা যাবে।”বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের এই মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছে তৃণমূল ।