“রাজ্যের তৃণমূলের মন্ত্রীদের সাথে যোগাযোগ রাখছেন বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা”- উঠলো জল্পনা

“রাজ্যের তৃণমূলের মন্ত্রীদের সাথে যোগাযোগ রাখছেন বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা”- উঠলো জল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদন: মুকুল রায় তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করার পরেই বিজেপি শিবিরে দেখা দিয়েছে অন্তর্কলহ। মুকুল রায়ের পথে পা বাড়িয়ে রয়েছেন রাজীব বন্দোপাধ্যায় সহ বিজেপির আরো নেতারা। মুকুল রায় নিজে বলেছেন যে তার সাথে বহু বিজেপি নেতারা যোগাযোগ করছেন তৃণমূলে আসবে বলে। এদিকে বিজেপি নেতা সুনীল মন্ডল কয়েকদিন আগেই বলেছিলেন, “তৃণমূল থেকে যারা বিজেপিতে এসেছেন তাদের সাথে বিজেপি মানিয়ে নিতে পারছে না।

তাদেরকে কিছুতেই সহ্য করতে পারছেনা বিজেপির আদি নেতারা।”এদিকে মুকুল রায় তৃণমূল প্রত্যাবর্তন করার পর থেকেই নির্বাচনী বিপর্যয় এর পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য নেতৃত্ব এবং কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন রাজ্যের বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। অনেকেই বলেছেন, নির্বাচনী প্রচারে হিন্দিভাষী নেতাদের আধিপত্য ভালোভাবে নেয়নি বাংলার মানুষ জন। এই ভোটে রাজ্যের অভিজ্ঞ বিজেপি নেতাদের বসিয়ে রেখে হিন্দিভাষী নেতারা তাদের রমরমা জারি রেখেছিলেন যার জন্য বিজেপির ভরাডুবি হয়েছে বলে মনে করছেন বিজেপির বহু কর্মী-সমর্থক।

আরও পড়ুন-ভোট পুনর্গণনার দাবিতে এবারে মামলা করবে বিজেপি!

আবার ভোট পরবর্তী হিংসার শিকার হলেও সেইসমস্ত বিজেপি কর্মী সমর্থকদের নিরাপত্তাজনিত কোনো ব্যবস্থা বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব করছে না বলে ক্ষোভপ্রকাশ করছেন বহু বিজেপি অনুগামী। এরপরেই জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পলকে ঘিরে।আসানসোল দক্ষিণের বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল নাকি গোপনে যোগাযোগ করছেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং আরো বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতার সাথে। মুকুল রায় কি বলেছেন যে তাকে অনেক বিজেপি বিধায়ক এবং কর্মীরা ফোন করে তৃণমূলে আসতে চাইছেন।

আরও পড়ুন-পারিবারিক বিবাদ দূরে সরিয়ে রেখে বেহালা বাসীর পাশে দাঁড়ালেন রত্না চট্টোপাধ্যায় !

সেই তালিকায় এবার উঠে এলো অগ্নিমিত্রার নাম । এই ঘটনার পরেই রাজ্যে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে যে শীঘ্রই হয়তো বিজেপির সাথে সম্পর্ক শেষ করতে চলেছেন অগ্নিমিত্রা।কিন্তু সমস্ত অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়ে অগ্নিমিত্রা বলেছেন, “সম্পূর্ণ ভুল রটনা হয়েছে। আমি জ্যোতিপ্রিয়বাবু কে ফোন করেছিলাম বসিরহাটের বেশকিছু ঘরছাড়াদের ঘরে ফিরিয়ে আনার জন্য। আমাকে আসানসোল দক্ষিণের মানুষ ভোট দিয়ে জিতিয়েছেন তাদের জন্য আমি কাজ করার জন্য সংকল্পবদ্ধ।”

আরও পড়ুন-মাত্র ১ টাকায় ৫ কেজি টাটকা সবজি; নতুন প্রকল্প এনে কামারহাটিতে অসহায় মানুষের পাশে মদন মিত্র।

এছাড়াও তৃণমূল নেতা মলয় ঘটক কে ফোন করার জল্পনার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “মলয় ঘটক এর সঙ্গে আমি কোন বিষয় নিয়ে সম্প্রতি কোন কথাবার্তা বলি নি। সম্পূর্ণ ভুল রটনা চারদিকে হচ্ছে। রাজনীতির প্রয়োজনে মানুষের কল্যাণার্থে একসাথে কাজ করাই যেতে পারে। কিন্তু তা বলে দলবদল এর কোনো রকম অভিপ্রায় আমার নেই।”