নিউজপলিটিক্স

“বিজেপিই মূল শত্রু”- ত্রিপুরায় তৃণমূলের সাথেই কি জোটের ইঙ্গিত দিলেন সীতারাম ইয়েচুরি?

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র এবং বিমান বসু আগেই ইঙ্গিত দিয়েছেন যে দেশীয় স্তরে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে তাঁরা তৃণমূলের পালে দাঁড়াতে পারেন। এদিকে ত্রিপুরার মাটিতে সিপিএম কে পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। এই আবহে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি কার্যত ত্রিপুরার মাটিতে বিজেপিকে রুখতে তৃণমূলের পাশে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন।

সূর্যকান্ত মিশ্র বলেছিলেন, “বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গেলে সকলকেই পাশে রাখতে হবে।” বিমান বসুও বলেছিলেন, “বিজেপি ছাড়া আমরা যে কোনো দলের সাথেই কাজ করবো।” অর্থাৎ বাম নেতারা অনেক আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে তাঁরা সর্বভারতীয় স্তরে বিজেপিকে রুখতে তৃণমূলের সাথে জোট করতেই পারেন। তবে সূর্যকান্ত মিশ্র বলেছিলেন যে, তাঁরা বাংলার মাটিতে তৃণমূলের বিরোধীই থাকবেন।

আরও পড়ুন – সোমবার থেকে নতুন নিয়মে টীকাকরণ কলকাতায়

ব্রাত্য বসুও বলেছেন যে, সিপিএমের সাথে জোট গঠন না হলেও তাদের পাশে নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করবে তৃণমূল। এমনিতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সারা ভারত জুড়ে বিজেপির বিরোধী সংগঠন গুলিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে ২০২৩ এর ত্রিপুরা বিধানসভা ভোটকে পাখির চোখ করে রয়েছে তৃণমূল। ইতিমধ্যেই বাংলার তৃণমূল নেতারা ত্রিপুরার মাটিতে যাতায়াত শুরু করে দিয়েছেন।

উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে ত্রিপুরার মাটিতে। এবার এই ত্রিপুরার মাটিতে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য কি তৃণমূলের হাত ধরতে পারে সিপিএম ? কার্যত এই ইঙ্গিত টাই দিয়েছেন সীতারাম ইয়েচুরি। তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন যে প্রধান শত্রু বিজেপি। গতকার ইয়েচুরি বলেছেন, “আমরা আগে থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই জারি রেখেছি। আমাদের কর্মীরা অনেক মার খেয়েছেন। নির্বাচনের এখনো অনেক সময় রয়েছে। এটা এখন জল্পনা হচ্ছে। আমরা হলাম সেকুলার। আমরা প্রথম থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছি।”

Related Articles

Back to top button