নিউজকলকাতাপলিটিক্সরাজ্য

শীঘ্রই কি ঘর ভাঙতে চলেছে বিজেপির? বিজেপির ৩ সাংসদ এবং ৮ বিধায়ক তৃণমূলের পথে পা বাড়িয়ে রয়েছেন।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটের আগে নরেন্দ্র মোদী বাংলার মাটিতে প্রচারে এসে দাবি করেছিলেন তৃণমূলের বহু নেতা-নেত্রীরা বিজেপিতে নাম লেখানোর জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন। এছাড়াও একুশের ভোটের আগে বেশ কয়েক জন তৃণমূল নেতা নেত্রীদের দেখা গিয়েছিল বিজেপিতে নাম লেখাতে ।কিন্তু ভোটের পরেই এই বিষয়টি বুমেরাং হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তৃণমূল থেকে বিজেপিতে চলে আসা বেশ কিছু নেতা নেত্রীরা আবার তৃণমূলে ফেরার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে তোষামোদ করছেন। তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন সোনালী গুহ, সরলা মূর্মূ, দীপেন্দু বিশ্বাস প্রমুখেরা। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ আগেই দাবী করেছিলেন যে বিজেপির বিধায়করা তাঁর সাথে যোগাযোগ করছেন, তাঁকে ফোন করছেন, মেসেজ করছেন তৃণমূলে আসার জন্য।

আরও পড়ুন-“মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে বেরিয়ে এসেছিলাম।”- কেন্দ্রের শোকজের জবাবে বললেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

এবার আবার তিনি দাবী করেছেন, “বিজেপির ৭-৮ জন বিধায়ক তৃণমূলে আবার ফিরে আসতে চাইছেন। বিজেপির ৩ সাংসদ এবং ৮ জন বিধায়ক তৃণমূলে আসার জন্য পা বাড়িয়ে রয়েছেন।”কিন্তু বিজেপির তরফ থেকে তৃণমূলের এই দাবী খারিজ করে বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘বিজেপির লোকেরা বিজেপিতেই রয়েছেন। বিজেপিতে অনুশাসন আছে, বিজেপির লোকেরা কেউ আর তৃণমূলে যাবেনা।

আরও পড়ুন-“সাবালকদের ব্যর্থতা নাবালককেই দেখতে হয়।”- শুভেন্দু অধিকারীর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে জবাব দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

তবে জল্পনা উঠছে যে, দুই দিনাজপুরের ৩ জন বিধায়ক, নদীয়ার দুই বিধায়ক, দক্ষিণবঙ্গের ২ বিধায়ক, এবং রাঢ়বঙ্গের এক বিধায়ককে নিয়ে যথেষ্ট চিন্তাগ্রস্থ হয়ে রয়েছে বিজেপি।ভোটের আগে পালাবদলের আবহের অনুমান করে বিজেপিতে দলে দলে নাম লিখিয়েছিলেন বহু তৃণমূল নেতা নেত্রীরা। কিন্তু মুকুল রায়, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, শুভেন্দু অধিকারী সহ অন্য কোনো তৃণমূল থেকে আগত নেতা নেত্রীদের বিজেপিতে সেভাবে গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হয়নি।

Related Articles

Back to top button