“বাংলা তৃণমূলের দুঃশাসন চায়না, পিসি ভাইপোর হিংসার খেলা চায়না”- বর্ধমানের জনসভা থেকে হুঙ্কার মোদীর

“বাংলা তৃণমূলের দুঃশাসন চায়না, পিসি ভাইপোর হিংসার খেলা চায়না”- বর্ধমানের জনসভা থেকে হুঙ্কার মোদীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোট ঘিরে উত্তপ্ত বাংলার রাজনৈতিক পরিবেশ। বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে বারবার বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ছে তৃণমূল-বিজেপি এবং বামফ্রন্ট সংযুক্ত মোর্চা। একুশের ভোটে কি কাকে হারিয়ে ছিনিয়ে নেবে নবান্নের সিংহাসন তা দেখা এখন শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা। চারটি দফা সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে, এখনো বাকি আছে চারটি দফা। বাংলায় নিজেদের কর্তৃত্ব স্থাপনে মরিয়া হয়ে রয়েছে বিজেপি।

রাজনীতির ইতিহাসে এই প্রথম ভারতের প্রধানমন্ত্রী বারবার ছুটে আসছেন বাংলার মাটিতে, পরপর জনসভায় অংশ নিচ্ছেন। ‌ যেকোনো মূল্যে বাংলা দখল হচ্ছে বিজেপির একমাত্র লক্ষ্য। এদিকে নিজেদের মাটি কামড়ে ধরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তৃণমূল। ‌ আজ রানাঘাটে জনসভা করছেন মুখ্যমন্ত্রী। এছাড়াও তিনি দমদম এবং বসিরহাটেও জনসভা করবেন।প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় রয়েছে আজ বর্ধমান কল্যাণী এবং বারাসাতের বুকে।

আরও পড়ুন-“আগামী ২ রা মে পদত্যাগ করার জন্য তৈরি থাকুন।”- মুখ্যমন্ত্রী কে কটাক্ষ করলেন অমিত শাহ।

বর্ধমানের জনসভা থেকে তিনি তীব্র আক্রমণ করেছেন তৃণমূল সরকার কে। মোদী বলেছেন,”ভাইপোর হাতে তৃণমূল কোম্পানিকে তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন দিদি, কিন্তু দিদির এই পরিকল্পনা সাধারণ মানুষের ধারণায় এসে গিয়েছে, তাই এবার তৃণমূলকে মাঠের বাইরে বের করে দিতে চলেছে বাংলার মানুষ।

আরও পড়ুন-শীতলকুচির কাণ্ডের বিষয়ে মুখ খুললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

বাংলার মানুষ চায় বিকাশ, নারী সুরক্ষা, উপযুক্ত শিক্ষা, শান্তির পরিবেশ। বাংলার মানুষ পরিবর্তন চায়, তৃণমূলের দুঃশাসন চায়না, পিসি ভাইপোর হিংসার খেলা চায়না। তৃণমূল তফসিলীদের ভিখারি বলেছে, তফসিলি ভাইদের অপমান করেছে। প্রথম চার দফা ভোটে তৃণমূল পুরো সাফ হয়ে গিয়েছে, তাই দিদির এত হতাশার উদ্রেক হয়েছে। বাংলার বুকে উস্কানি দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।”