নিউজবিনোদন

“বাংলাদেশী অভিনেত্রী শাবানা সত্যিকারে একজন ভদ্রমহিলা, পরিমনি শুধুই একজন মহিলা”- মন্তব্য টলিউড অভিনেতা বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত সপ্তাহে বাংলাদেশী নায়িকা পরিমনির বাড়ি থেকে বাংলাদেশের র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন নিষিদ্ধ মাদক এবং মদ উদ্ধার করেছে। সাথে সাথেই নায়িকাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পরিমনির বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয়েছে ৩০ টি বিদেশী মদের বোতল, এলএসডি নেশার জন্য ব্যবহৃত ব্লটিং কাগজ, এবং কিছু নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য।এদিকে বাংলাদেশী লেখিকা তসলিমা নাসরিন ফেসবুকে পরিমনির পক্ষ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধাচরণ করে যথেষ্ট আক্রমণ শানিয়েছেন।

জানা গিয়েছে বাংলাদেশের গুলশান বিভাগের এডিসি মহম্মদ গোলাম সাকলায়েন শিথিলের সাথে সম্পর্ক রয়েছে পরিমনির এমনটাই গুঞ্জন উঠেছে। এদিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ সাকলায়েনকে তাঁর দ্বায়িত্ব থেকে হটিয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।এই আবহের মধ্যে পরিমনির সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন প্রবীণ অভিনেতা বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়। ‌ টলিউডের নামকরা অভিনেতা বিপ্লব চট্টোপাধ্যায় ‘রক্ত’ সিনেমায় পরিমনির সাথে একটি নাচের দৃশ্যে অভিনয় করেছিলেন ।

আরও পড়ুন-“আর কখনো নায়ক নায়িকাদের গাড়ি চালাবো না”- বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বাংলাদেশী নায়িকা পরিমনির গাড়িচালক

তবে তিনি বলেছেন, “পরীমনির মত মহিলার সাথে স্ক্রিন শেয়ার করার কোন প্রশ্নই ওঠে না। আমরা শুধুমাত্র একটি নাচের দৃশ্যে এক ফেমে বন্দি হয়েছি।”বাংলাদেশের আরেক অভিনেত্রী শাবানার বিষয়ে বিপ্লব চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, “শাবানা সত্যিকারের একজন ভদ্রমহিলা। তার স্বামীর সাথে আমার যথেষ্ট খাতির রয়েছে।

কিন্তু পরীমনিকে শুধুমাত্র মহিলার বাইরে আমি অন্য কিছু বলতে পারছি না। আমি একটা কথাই জানি সমস্ত যা রটনা হচ্ছে তা অধিকাংশ মিথ্যা নয়। একজনের নামে এত বদনাম কখনোই শোনা যায় না। তাছাড়া পরিমনির বাড়িতে যাওয়ার কোন প্রশ্নই ওঠেনি কারণ ‘রক্ত’র শুটিং কলকাতার মাটিতেই সম্পন্ন হয়েছিলো।”

আরও পড়ুন-গোয়ায় খোলামেলা সাঁতারের পোশাকে রঙিন মুহূর্ত কাটাচ্ছেন গৌরব – দেবলীনা

গত ২০১৬ সালে ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় ‘রক্ত’ সিনেমাটি মুক্তিলাভ করেছিলো। এই সিনেমায় বাংলাদেশের নায়িকা পরীমনি অভিনয় করেছিলেন। এছাড়াও এই সিনেমায় প্রবীণ অভিনেতা বিপ্লব চট্টোপাধ্যায় উপস্থিত ছিলেন।

Related Articles

Back to top button