নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“আয়ারাম গয়ারাম পশ্চিমবঙ্গের সংস্কৃতি নয়।”- বললেন বিজেপি নেতা তথা আরেক দলবদলু হীরণ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে তৃণমূল ছেড়ে বহু নেতা-নেত্রীরা নাম লিখিয়েছিলেন বিজেপিতে। বিধানসভা ভোটের আগেই তৃণমূলের অন্যতম সেনাপতি শুভেন্দু অধিকারী বিস্তর বিক্ষোভ প্রকাশ করে বিজেপির ছত্র ছায়ায় আশ্রয় নিয়েছিলেন। বর্তমানে শুভেন্দু অধিকারী হলেন বিজেপির অন্যতম বিরোধী নেতা । তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক সোনালী গুহ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রকাশ করে দল ছেড়ে বিজেপিতে ঢুকেছিলেন।

‌ চার বছর আগে তৃণমূলের সঙ্গ ত্যাগ করে বিজেপিতে এসেছিলেন মুকুল রায়। বিজেপি তাঁকে সর্বভারতীয় সভাপতি পদে আসীন করেছিল। কিন্তু প্রথম থেকেই বিচ্ছেদের সুর শোনা গিয়েছিল মুকুল রায়ের গলায়। বিধানসভা নির্বাচনে সক্রিয়ভাবে তাঁকে প্রচারে দেখা যায়নি ।

আরও পড়ুন-“যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দলের আবর্জনা সাফ করুন”- শুভেন্দুর কাছে আর্জি জানালেন বৈশালী ডালমিয়া।

কৃষ্ণনগরের তিনি জিতে গিয়েছেন ঠিকই কিন্তু তার পুত্র শুভ্রাংশু রায় বিজেপি থেকে দাঁড়িয়ে হেরে গিয়েছেন। তারপর থেকেই মুকুল রায়ের গলায় ধ্বনিত হয়েছে বিদ্রোহের সুর। মুকুল রায়ের অসুস্থ স্ত্রীকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিষেকের এই আগমনকে কেন্দ্র করে যথেষ্ট অভিভূত হয়েছিলেন শুভ্রাংশু রায়।

কিন্তু দিলীপ ঘোষ লকেট চট্টোপাধ্যায় এর আগমন এবং প্রধানমন্ত্রীর ফোন করে খোঁজ নেওয়ার বিষয়টিকে ততটা গুরুত্ব দেননি মুকুল এবং শুভ্রাংশু দুজনেই। ‌ যার ফলে জল্পনা তীব্রতর হয় যে খুব শীঘ্রই হয়তো বিজেপির সঙ্গ আবার ত্যাগ করতে চলেছেন মুকুল এবং শুভ্রাংশু। অবশেষে জল্পনাকে সত্যি করে গতকাল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর থেকে উত্তরীয় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর হাত ধরে পুরনো দল তৃণমূলে ফিরে গিয়েছেন মুকুল রায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন,”মুকুল আমাদের পরিবারের ছেলে।

আরও পড়ুন-“কাছ থেকে মীরজাফরকে দেখলাম।”- মুকুলের উদ্দেশ্যে কটাক্ষ সৌমিত্র খাঁ এর।

কেন্দ্রীয় সরকার ওকে ধমক দিয়ে এজেন্সির দ্বারা ভয় দেখিয়ে অত্যাচার করেছে। যার জন্য কখনোই মানসিক শান্তি পায়নি। একটা কথাই বলবো বিজেপি করা যায় না। বিজেপিতে যারা রয়েছেন তাঁরা মনুষ্যত্ব নিয়ে বাঁচতে পারেন না।”

এদিকে মুকুল রায়ের দলত্যাগে তাঁকে একহাত নিয়েছেন বিজেপির অন্যান্য নেতা নেত্রীরা। সৌমিত্র খাঁ, বৈশালী ডালমিয়া প্রভৃতি নেতা নেত্রীরা কটাক্ষ করেছেন মুকুল রায়কে। এবার মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছেন বিজেপি নেতা হীরণ। ভোটের আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন অভিনেতা হীরণ।

আরও পড়ুন-“কাজ করতে চাইলেও একসঙ্গে অনেক নেতাকে বসিয়ে রাখা হয়।”- মুকুল রায় দলত্যাগ করতেই বিদ্রোহ বিজেপির অন্দরে।

খড়গপুরের বিজেপি প্রার্থী হয়ে এবারে জয়লাভ করেছেন তিনি। অভিনেতা হীরণ টুইটারে বলেছেন , “ধান্দাবাজির রাজনীতি অবিলম্বে বন্ধ হোক। পশ্চিমবঙ্গ যে নোংরা রাজনীতির খেলা দেখছে তাতে রাজনৈতিক নেতাদের উপর সাধারণ মানুষের আস্থা খুব শীঘ্রই উঠে যাবে। আয়ারাম গয়ারাম পশ্চিমবঙ্গের সংস্কৃতি নয়।”

Related Articles

Back to top button