নিউজদেশপলিটিক্স

বাদল অধিবেশনে লাগাতার বিক্ষোভের ফলে নাম না করে ডেরেক, শান্তনুকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: লোকসভার প্রথম অধিবেশন থেকেই বিরোধীদের লাগাতার বিক্ষোভের ফলে কার্যত উত্তাল হয়ে রয়েছে লোকসভার এই অধিবেশন। প্রতিদিন কোনো না কোনো ভাবে মুলতুবি রাখতে হচ্ছে অধিবেশন। বিশেষ করে তৃণমূল সাংসদদের লাগাতার বিক্ষোভের ফলে অত্যন্ত উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে। পেগাসাস ইস্যু থেকে শুরু করে পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি সহ একাধিক ইস্যুতে যথেষ্ট উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে লোকসভার অধিবেশন।

রীতিমতো লোকসভার বাইরে এবং ভীতরে লাগাতার বিক্ষোভ দেখিয়ে চলেছেন বিরোধীরা। এমনিতেই মুখ্যমন্ত্রী সারা দেশজুড়ে মোদী বিরোধী শক্তিগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হ‌ওয়ার ডাক দিয়েছেন। তিনি দিল্লি গিয়ে সাংসদদের নির্দেশ দিয়ে এসেছেন যে পেগাসাস সহ বিভিন্ন ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে ক্রমাগত সুর চড়িয়ে যেতে হবে যে নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন তৃণমূল সাংসদরা। কৃষি বিলের‌ বিরুদ্ধেও বারবার আক্রমণ শানাচ্ছেন বিরোধীরা।

আরও পড়ুন-জামিন পাওয়ার পরেও গ্রেপ্তার রাখাল বেরা ।‌ রাজ্যকে তীব্র ভর্ৎসনা করল কলকাতা হাইকোর্ট

এবার এই আবহে ক্রমাগত বিক্ষোভের দরুণ তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন এবং শান্তনু সেনকে নাম না করে যথেষ্ট আক্রমণ শানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি শান্তনু সেন কে কটাক্ষ করে বলেছেন,”সংসদের মধ্যে যিনি কাগজ নিয়ে ছিঁড়ে ফেলেছিলেন তার কোনো অনুশোচনা হয়নি। এই কাজটার মধ্যে দিয়ে তিনি সংসদের ,সংবিধানের অপমান করেছেন ,গণতন্ত্রকে অপমান করেছেন।”তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন সংসদে বিল পাস করানোকে কটাক্ষ করে কেন্দ্রীয় সরকারকে পাপড়ি চাট তৈরির বিষয়ে মন্তব্য করে টুইট করেছিলেন।

আরও পড়ুন-পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে দিল্লির রাজপথে সাইকেল র‌্যালি করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

এই পরিপেক্ষিতে নাম না করে ডেরেক ও’ব্রায়েন কে আক্রমণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “একজন বর্ষীয়ান সংসদ বিল পাস করানোর পরিপ্রেক্ষিতে অত্যন্ত অপমানজনক মন্তব্য করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।”এখনো পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর আক্রমণের কোনো জবাব দেয়নি তৃণমূল সাংসদরা।

Related Articles

Back to top button