“২০২০ সালে রেললাইনে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৯ হাজার জনের।”- তথ্য দিলো ভারতীয় রেল।

“২০২০ সালে রেললাইনে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৯ হাজার জনের।”- তথ্য দিলো ভারতীয় রেল।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশে মোট কতজন মানুষের রেললাইনে মৃত্যু হয়েছে তা জানানোর দাবী নিয়ে অধিকার আইনে মামলা দায়ের করেছিলেন মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দা চন্দ্রশেখর গৌড় । এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় রেল তথ্য দিয়েছে যে, ২০২০ সালে রেলের লাইনে মৃত্যু হয়েছে ৮ হাজার ৭৩৩ জনের । আহত হয়েছেন ৮০৫ জন। মৃতদের মধ্যে বেশীরভাগই পরিযায়ী শ্রমিক যারা লকডাউনে নিজেদের মাতৃভূমিতে ফিরতে চেয়েছিলেন।

লকডাউনের প্রথম পর্যায়ে পরিযায়ী শ্রমিক দের দুর্দশার চিত্র টি রেখেছিল সারা ভারত। মাইলের পর মাইল পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরতে গিয়ে পথমধ্যে প্রাণ গিয়েছে অসংখ্য হতভাগ্য পরিযায়ী শ্রমিকদের। লকডাউনে রেললাইন ধরেই বেশীরভাগ পরিযায়ী শ্রমিকেরা বাড়ি ফিরছিলেন। পুলিশের চোখ এড়িয়ে যেতে অনেকেই রেললাইনকেই বেছে নিয়েছিলেন। একটি ঘটনায় দেখা গিয়েছিলো যে ক্লান্ত হয়ে রেললাইনেই ঘুমিয়ে পড়ায় বেশ কয়েকজন পরিযায়ী শ্রমিকদের পিষে দিয়েছিলো ট্রেন। মর্মান্তিক এই ঘটনায় নাড়িয়ে দিয়েছিল সারা দেশকে। ১৬ জন মারা গিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন-কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মুখ্যমন্ত্রী যখন ডি.লিট সম্মান পেয়েছিলেন তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছিলেন আলাপন পত্নী সোনালী বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই ঘটনা ঘটেছিলো মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গদাবাদে। গত বছর ২৫ শে মার্চ থেকেই রেল পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিলো। তারপরেই দেশব্যাপী পরিযায়ী শ্রমিকদের দূর্দশার চিত্র দেখা গিয়েছিলো। তারপরে ১ লা মে থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানো শুরু করেছিলো ভারতীয় রেল।২০১৯ সালে রেলের দূর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে মোট ১৫ হাজার ২৯৪ জনের। তার আগে ২০১৮ সালে রেলের ধাক্কায় মারা গিয়েছেন ১৪ হাজার ১৯৭ জন। সারাদিন সারা দেশের বুকে মোট ১৭ হাজার ট্রেন চলাচল করে। রেলের তরফে সকলকেই বারবার সাবধান করা হয় সতর্কভাবে লাইন পারাপার করতে। তবুও হামেশাই রেল দূর্ঘটনা হয়েই থাকে।