মদ্যপান করে বন্ধুর সাথে ঝগড়া। নেতাজিনগরে বন্ধ ঘরে পাওয়া গেল তরুণীর ঝুলন্ত দেহ।

মদ্যপান করে বন্ধুর সাথে ঝগড়া। নেতাজিনগরে বন্ধ ঘরে পাওয়া গেল তরুণীর ঝুলন্ত দেহ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বর্তমানে তরুণসমাজের মধ্যে দেখা গিয়েছে বিভিন্ন নেশার প্রতি আসক্তি। বিশেষ করে বিগত কয়েক বছরে মদের প্রতি আসক্তি বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েক গুণ। আজ বহু তরুণ তরুণীরা অতিরিক্ত মাত্রায় মদের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছেন। যার ফলে বিভিন্ন ভুল কাজে লিপ্ত হচ্ছে তারা। ঠিক এ রকমই একটি ঘটনা ঘটেছে টালিগঞ্জের নেতাজিনগরে ।বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এক তরুনীর ঝুলন্ত দেহ। জানা গিয়েছে ওই তরুণীর নাম পূজা গায়েন।

বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছিল তার। টালিগঞ্জে নেতাজিনগরে ওই বাড়িতে তিনি একাই ভাড়া থাকতেন। তাঁর আদি বাড়ি হল পূর্ব বর্ধমানের দেবীপুরে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে ঘরের দরজা তার ভীতর থেকে বন্ধ করা ছিল। তাঁর বন্ধুরা অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করার পরেও তাঁর সাড়া না পেয়ে সকলে মিলে দরজা ভেঙে দেখেন যে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে ঝুলছেন ওই তরুণী। সাথে সাথে নেতাজি নগর থানায় খবর দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন-পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি বাড়িতে বিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছে দিতে ৭ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করল কেন্দ্রীয় সরকার।

পুলিশ এসে মৃতদেহ বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা ওই তরুণীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে গতকাল বিকালে ওই তরুণী তার এক বান্ধবী জিনা সরকারকে ফোন করে বাড়িতে ডেকেছিলেন। সেখানে উপস্থিত ছিল টুম্পা নামক আরো একজন তরুণী। সেখানে তারা তিনজনে খাওয়া-দাওয়া এবং মদ্যপান করেন। মদ্যপান করার সময় হঠাৎ পূজা এবং টুম্পা একে অপরের সাথে তুমুল ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন-মেহুল চোকসিকে ছাড়াতে ডমিনিকার বিরোধী নেতাকে নাকি ঘুষ দিয়েছেন মেহুলের ভাই চেতন

অনেকক্ষণ পর্যন্ত এই ঝগড়া চলতে থাকে। তারপর তারা চলে যাওয়ার পর ঘুমোতে চলে যান পূজা। দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়। তারপরই উদ্ধার হয় তার ঝুলন্ত নিষ্প্রাণ দেহ। প্রাথমিক তদন্তে তদন্তকারী অফিসাররা অনুমান করছেন যে এটা আত্মহত্যার ঘটনা। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে সমস্ত কিছু পরিষ্কার হবে।