নিউজ

ফের মানবিকতার নজির;লকডাউনে রাস্তার ১৩ টি কুকুরের দায়িত্বভার নিজের কাঁধে তুলে নিলেন মহিলা!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-আমাদের চারপাশের সব সময়তেই এমন কিছু ঘটনা ঘটে যা অনেক সময় খুব সাধারন হওয়ার জন্য চোখের বাইরে চলে যায়। কিন্তু লক্ষ্য রাখলে বোঝা যাবে এর মধ্যে অনেক ঘটনাই আমাদের জীবনে শিক্ষামূলক কিছু রেখে দিয়ে যায়। গতবছর লকডাউন এর সময় থেকেই মানুষের জীবনযাত্রার মধ্যে অনেকাংশে পরিবর্তন এসেছে

Advertisement
। বলতে গেলে করোনাভাইরাস এর কালে মানুষ একেবারেই ঘরবন্দি হয়ে গিয়েছে।

বাইরে বেরোলেই ভাইরাস শরীরে বাসা বেঁধে বসবে এই ভয়ে মানুষকে সারাদিন ঘরের মধ্যেই নিজের জীবনযাত্রায় চালাতে হচ্ছে। বর্তমান বছরে ভ্যাকসিন আসার পরেও এই ঘটনার সবিশেষ পরিবর্তন লক্ষ করা যায়নি।তার কারণ এখনও পর্যন্ত সংক্রমণ না কমার ফলে মানুষ অনেকটাই সর্তকতা অবলম্বন করছেন। কিন্তু এই পরিস্থিতিতেই অবলা প্রাণীদের দায়িত্বভার গ্রহণ করে নজির সৃষ্টি করলেন এক মহিলা। হয়তো এই প্রতিবেদনটি পড়ার পর কিছুটা হলেও অবাক হবেন আপনি।কারণ আমাদের চারপাশে বিভিন্ন ধরনের ঘটনা ভাইরাল হলেও এই ধরনের ঘটনা প্রায় দেখা যায় না বললেই চলে।

Advertisement

প্রসঙ্গত লকডাউন এর সময় অনেক জায়গাতেই অসহায় মানুষদের দান ধ্যান করার ব্যবস্থা চালু ছিল। কিন্তু মানুষের উপর নজর রাখলেও আমরা কখনই অবলা পশুর ওপর নজর রাখি না। ঘরের পোষ্যদের যত্নে রাখলেও আমরা কখনই রাস্তার পশুদের প্রতি ভালোবাসা দেখাই না।কিন্তু এই অবস্থাতেই নেট দুনিয়ায় ভাইরাল একটি ছবির মাধ্যমে মানুষের মানসিকতা অনেকটাই পরিবর্তিত হয়ে গিয়েছে। প্রসঙ্গত সম্প্রতি নেটদুনিয়ায় একটি ছবি ঘুরে বেড়াচ্ছে।

আরও পড়ুন-সেনা জওয়ানের সাথে কথা কাটাকাটিতে জড়ালেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী, গেলেন রেগে, ভাইরাল ভিডিও!

Advertisement

যে ছবিতে দেখা যাচ্ছে,একটি মহিলা নিজে রান্না করে রাস্তার কুকুরদের খাওয়াচ্ছেন। জানা গিয়েছে সেই মহিলাটি চেন্নাইয়ের বাসিন্দা, নাম মিনা, পেশায় রাঁধুনি তিনি। ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, বিশেষ কিছু আয় না থাকলেও সকলের সেবা করতে ভালবাসেন এই মহিলা। বিশেষত রাস্তার পশুদের ক্ষেত্রে তার ভালোবাসা অপরিসীম।করোনা ভাইরাস এর জেরে দেশজুড়ে লকডাউন চলায় রাস্তার কুকুর-বিড়াল রাও সমস্যায় পড়েছে।

যে মানুষগুলো পথে যেতে আসতে রাস্তার কুকুর-বিড়াল দের দিকে এক টুকরো বিস্কুট বা একটু খাবার ছুঁড়ে দিত, লকডাউন চলায় তাও বন্ধ হয়ে গিয়েছে।তাই শেষপর্যন্ত আর কোন উপায় না থাকায় সেই কুকুরদের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন মিনা।ইতিমধ্যেই এই ঘটনার খবর ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনেক জায়গাতেই ছড়িয়ে গিয়েছে। জানা গিয়েছে চেন্নাইয়ের সর্বমোট ১৩ টি কুকুরের দায়িত্ব নিয়েছেন মিনা। শুধুমাত্র খাবার দাবার নয় ওই কুকুরদের সর্বক্ষণের সব দায়িত্ব পালন করবেন এই মহিলা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য সবাই যদি এভাবেই এগিয়ে এসে সামাজিক ভাবে মানুষের পাশাপাশি পশুদেরও সহায়তা করেন, তাহলে আমাদের সমাজের চিত্র অনেকটাই আলাদা হয়ে উঠবে।

Advertisement

কিন্তু তার জায়গায় উল্টোটাই দেখা যায় বেশিরভাগ।সম্প্রতি সরস্বতী পুজোর সময় বেশ কিছু জায়গা থেকে ঠাকুরের ভোগের মধ্যে বিষাক্ত পদার্থ মিশিয়ে কুকুরদের মেরে ফেলার খবর সামনে এসেছিল। এই ঘটনায় আলোড়ন সৃষ্টি হয়ে গিয়েছিল পশুপ্রেমীদের মধ্যে। প্রায় ২০ টিরও বেশি কুকুরের মৃত্যু হয়েছিল এই ঘটনায়।

মাঝে মাঝেই সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিভিন্ন ভাইরাল ফটো বা ভিডিওতে দেখা যায় অনেক মানুষ রাস্তার কুকুরদের উপর অত্যাচার করছে, তাদের গায়ে পেট্রোল ঢেলে জ্বালিয়ে দিচ্ছে কিংবা তাদের খাবারে বিষ মিশিয়ে তাদের মেরে ফেলছে।খুব স্বাভাবিক ভাবেই মিনার এই ঘটনা সেই সব মানুষদের জন্য একটি শিক্ষামূলক বিষয় যারা পশুদের কোন জীব বলে মনে করেন না। আমরা আশা করব ঠিক এমন ভাবে ভবিষ্যতেও যেন বিভিন্ন ঘটনা দেখতে পারি। যাতে মৃত্যুর নয়, দায়িত্বের কথা রয়েছে।

Advertisement

Related Articles

Back to top button