নিউজদেশপলিটিক্স

দিল্লিতে জরুরি তলব করা হল শুভেন্দু অধিকারীকে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটকে পাখির চোখ করে বাংলার মাটিতে নিজেদের একচ্ছত্র ক্ষমতা বলবৎ করার উদ্দেশ্যে সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল বিজেপি। বিজেপির তাবড় তাবড় কেন্দ্রীয় নেতা মন্ত্রীরা ভোটের আবহে বারবার বাংলার মাটিতে প্রচার করেছিলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ থেকে শুরু করে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং প্রভৃতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা বারবার বাংলার মাটিতে জনসভা করেছেন রোড শো করেছেন। কিন্তু একুশের ভোটের ফলাফলে দেখা গিয়েছে তৃণমূলের কাছে চূড়ান্তভাবে পরাজয় ঘটেছে বিজেপির।

বাংলায় রাজনৈতিক পালাবদলের ইঙ্গিত পেয়ে দলে দলে বেশ কয়েকজন তৃণমূলের তাবড় তাবড় নেতা নেত্রীরা নাম লিখিয়েছিলেন বিজেপিতে। কিন্তু একুশের ভোটে বাংলায় বিজেপির চূড়ান্ত পরাজয়ের পরেই আবার দলবদলু নেতারা তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন জানাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে। আবার একুশের ভোটে তৃণমূলের জয়লাভের পরেই বাংলায় তৃণমূল কর্মীদের হাতে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের আক্রান্ত হ‌ওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এই ব্যাপারে শীর্ষ বিজেপি নেতৃত্ব কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না বলে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

আরও পড়ুন-“দেশে কেউ খালি পেটে থাকবে না।”- বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এদিকে বিজেপির তাবড় তাবড় নেতারাও হঠাৎ বেসুরো হয়ে উঠেছেন। যেমন মুকুল রায়কে নিয়ে কয়েকদিন ধরেই যথেষ্ট চিন্তাগ্রস্ত রয়েছে বিজেপি।এই আবহের মধ্যেই বিজেপির বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে জরুরী ভিত্তিতে তলব করেছে দিল্লির বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। জানা গিয়েছে আজ সকালেই দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন শুভেন্দু অধিকারী।

আরও পড়ুন-“বিরোধী দলনেতার কাজ যেটা সেটাই করুন।”- শুভেন্দু কে বিঁধলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

একুশের ভোটে নন্দীগ্রামে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে দাঁড়িয়ে জয় পেয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি হারিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে।এদিকে বিজেপির অভ্যন্তরেই দেখা দিয়েছে ক্ষোভ। অনেকেই শুভেন্দু অধিকারী কে বিরোধী দলনেতা পদে দেখতে নারাজ।

আরও পড়ুন-বিজেপির ভাবমূর্তি বাঁচাতে জে পি নাড্ডার বাড়িতে হাইভোল্টেজ বৈঠক বিজেপির।

তাই এবার জরুরি ভিত্তিতে শুভেন্দু অধিকারী কে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হয়েছে। ওখানে গিয়ে শুভেন্দু দেখা করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার সাথে। আগামীকাল বুধবার তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথেও বৈঠক করবেন বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু এক্ষেত্রে দিলীপ ঘোষকে কেন ডাকা হলনা সেই নিয়ে বাংলার রাজনৈতিক পটভুমিতে যথেষ্ট জল্পনার সূত্রপাত হয়েছে।

Related Articles

Back to top button