নিউজপলিটিক্সরাজ্য

তাঁর বাড়িতে মধ্যহ্নভোজ সেরেছিলেন অমিত শাহ। কিন্তু কঠিন পরিস্থিতিতে ভ্যানচালকের পাশে দাঁড়ালো রাজ্য সরকার‌ই

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটের আগেই বাংলার মানুষের সমর্থন আদায় করার জন্য রীতিমতো দিনরাত এক করে দিয়েছিল বিজেপি। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা বারবার বাংলার মাটিতে ছুটে এসেছিলেন । স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বারবার বাংলার মাটিতে জনসভা এবং রোড শো করেছেন। মানুষের সমর্থন আদায় করতে আদিবাসীদের বাড়িতে এবং বেশ কয়েকজন দরিদ্র মানুষের বাড়িতে খাওয়া দাওয়া সেরেছিলেন।

তাঁদের মধ্যে একজন হলেন ডোমজুড়ের চামরাইল গ্রামের ভ্যানচালক শিশির সানা। অবিবাহিত শিশির তাঁর মা সুমিত্রা সানাকে নিয়ে থাকেন একচিলতে একটি ঘরে। তাঁর সংসারে সর্বত্র অভাবের চিহ্ন ছড়িয়ে রয়েছে। এহেন একুশের ভোটের আগে তাঁর বাড়িতেই মধ্যাহ্নভোজ ছেড়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

আরও পড়ুন-“যেন কিছু মনে কোরো না, কেউ যদি কিছু বলে”- গানে গানে জবাব দিলেন বাবুল সুপ্রিয়

শিশির সানার পারিবারিক পরিস্থিতি দেখে তাঁর সুদিন ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এছাড়াও তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে শিশির বাবুকে একটা কাজ তিনি অবশ্যই পাইয়ে দেবেন। কিন্তু ভোট মিটে যেতেই আবার সেই দারিদ্র্যের সঙ্গে নিরন্তর লড়াই শিশির সানার। আর দেখা নেই বিজেপি কর্মকর্তাদের।

শিশিরবাবু বলেছেন, “স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই আমাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে তিনি আমাদের ছাদ মেরামত করে দেবেন। তিনি আসার আগে এলাকার বিজেপি নেতারা বলেন যে অমিত শাহ প্রচারের এসে দুপুরে আমাদের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সারবেন। আমি সাথে সাথে রাজি হয়ে গিয়েছিলাম এবং নিজের সাধ্যমত প্রায় ২ হাজার টাকা খরচ করে উনাদের মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থা করেছিলাম। আমি উনাকে অনুরোধ করেছিলাম কম সে কম আমাদের ছাদ টা সারিয়ে দিতে।

আরও পড়ুন-‘বিজেপি-তৃণমূল এক নয়।’- কমরেডদের শেখাতে চলেছে সিপিএম নেতৃত্ব।

কিন্তু উনি প্রতিশ্রুতি দিলেও, ভোট মিটতে আর কোনো বিজেপি নেতার দেখা নেই।”এ হেন সেই শিশির সানার পাশে দাঁড়িয়েছে সেই তৃণমূল‌ই। বর্তমান রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের সুবিধা পাইয়ে দেওয়া হয়েছে দরিদ্র ভ্যানচালক শিশির সানাকে। সেই সাথে স্থানীয় পঞ্চায়েত তার ভেঙে পড়া বাড়ির ছাদ মেরামত করে দিচ্ছে।

আরও পড়ুন-আবার বাংলায় কৈলাস বিজয়বর্গীয়। রাজ্যে নেওয়া হল তিন যাত্রার সিদ্ধান্ত।

রাজ্য সরকারের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন শিশির সানা। পঞ্চায়েতের এই উদ্যোগে যথেষ্ট খুশি হয়েছেন শিশিরবাবু। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা প্রতিশ্রুতি দিয়ে গায়েব হয়ে গিয়েছেন। ‌ তার এই সংকটজনক পরিস্থিতিতে পাশে দাঁড়িয়েছে রাজ্য সরকার।

‌ শিশিরবাবু বলেছেন,”আমরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকব।”

Related Articles

Back to top button