আগামীকাল কাল থেকে বিকেল পাঁচটা থেকে আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে সকল রেস্ট্রুরেন্ট, ঘোষণা মমতা ব্যানার্জীর!

আগামীকাল কাল থেকে বিকেল পাঁচটা থেকে আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে সকল রেস্ট্রুরেন্ট, ঘোষণা মমতা ব্যানার্জীর!

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্যে জারি হয়েছে বেশ কিছু বিধিনিষেধ। আগামী ১৫ ই জুন পর্যন্ত এই বিধিনিষেধ বাড়ানো হয়েছে। জানা গিয়েছে জরুরী পরিষেবার সাথে যুক্ত দপ্তরগুলো ছাড়া বন্ধ রাখা হবে সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি দপ্তর গুলি। লোকাল ট্রেন আগেই বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছিল। আগামী ১৫ ই জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে ফেরি পরিষেবা থেকে শুরু করে মেট্রো এবং বাস পরিষেবাও। জরুরী প্রয়োজন ব্যতীত চলাচল করবে না ট্যাক্সি এবং অটো।

বন্ধ থাকবে সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি।রাজ্যের সমস্ত সিনেমা হল, জিম, সুইমিংপুল, শপিংমল, স্পা, বিউটি পার্লার বন্ধ রাখা হবে। বন্ধ থাকবে সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি। সমস্ত হোটেল, রেস্টুরেন্ট বন্ধ থাকবে এমনটাও ঘোষণা করা হয়েছিলো। বন্ধ থাকবে সমস্ত রকমের রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় সমাবেশ। রাত ৯ টা থেকে সকাল ৫ টা পর্যন্ত জারি থাকবে নাইট কার্ফু। এরপরেই মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন যে খুচরো দোকান গুলো বেলা ১২ টা থেকে দুপুর তিনটে পর্যন্ত খুলে রাখা যাবে।

আরও পড়ুন-“সকলের কাছেই পৌঁছাবে ত্রাণ।”- সুন্দরবনের পাথরপ্রতিমা, সন্দেশখালি পরিদর্শন করার পর আশ্বাস দিলেন অভিষেক।

এবার আরেকটি ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন এবার বেলা ১২ টা থেকে বিকাল ৪ টে পর্যন্ত খুলে রাখা যাবে খুচরো দোকান।তিনি এটাও বলেছেন, ‘এবার খোলা যাবে রেস্তোরাঁ গুলিও। বিকেল ৫ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খুলে রাখা যাবে রেস্তোরাঁ। রেস্তোরাঁর কর্মীদের টীকাকরণ করিয়ে খোলা যাবে রেস্তোরাঁ গুলি। তবে ৫০% কর্মী নিয়ে কাজ করতে হবে। দরকার হলে অনলাইন ডেলিভারীর উপরে বেশী গুরুত্ব দিক হোটেল এবং রেস্তোরাঁ গুলি। প্রতিটি কর্মীকে মাস্ক, ক্যাপ এবং গ্লাভস পরে কাজ করতে হবে। এছাড়াও কর্মীদের দ্বায়িত্ব নিতে হবে রেস্তোরাঁ মালিকদেরকেই।’