নিউজ

কেমোথেরাপির জন্য প্রস্তুত ঐন্দ্রিলা, মনের জোর বাড়াতে ন্যাড়া হলেন অভিনেত্রীর বান্ধবী!

নিজস্ব প্রতিবেদন : বন্ধুত্ব কথাটির মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে বিশ্বাস, ভরসা, ভালোবাসা। একজন প্রকৃত , বিশ্বস্ত বন্ধুই পারে জীবনে এগিয়ে চলার ছন্দকে সুমধুর করে তুলতে। সাথে যদি প্রকৃত বন্ধুর সঙ্গ থাকে তাহলে হাজারো বাধা বিপত্তি অতিক্রম করেও এগিয়ে চলা যায়। ঠিক এরকমই এক নিঃস্বার্থ বন্ধুত্বের সংজ্ঞা উঠে এলো সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা থেকে।

কালার্স বাংলার এক জনপ্রিয় সিরিয়াল জিয়ন কাঠি। সেই সিরিয়ালের অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা অনেকের কাছেই পরিচিত মুখ। ‌ কিন্তু একসময় ক্যান্সার থাবা বসিয়েছিলো তার শরীরে। তাঁকে ৩৩ টি কেমো দেওয়া হয়েছিলো। তারপর তাঁর শরীর সুস্থ্য হয়ে যায় এবং তিনি আবার ফিরে আসেন টেলি জগতে। সবকিছুই সচ্ছন্দে চলছিল ।

কিন্তু আবার বাধ সাধলো সেই ক্যান্সার। আবার ক্যানসার উপস্থিত হয়েছে তাঁর শরীরে। জানা গিয়েছে দিল্লির একটি বেসরকারি হাসপাতালে কেমোথেরাপি শুরু হয়েছে অভিনেত্রীর । একটা কেমোথেরাপি হওয়ার পর অভিনেত্রী ফিরেছেন অভিনয় জগতে। এখনো তাকে তিনটি কেমো নিতে হবে।

আরও পড়ুন-“দিদি ভাঙা পায়েই একশোটা গোল দেবেন”, জনসভায় গলা ফাটালেন দেব!

এদিকে অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি শেয়ার করে প্রকৃত বন্ধুত্ব কি ধরনের হয় তার নিদর্শন দিয়েছেন। ‌ কেমোথেরাপি নেওয়ার পর ঐন্দ্রিলার চুল উঠে গিয়েছে। ন্যাড়া অবস্থায় ঐন্দ্রিলা হাসিমুখে ওই ছবিটি পোস্ট করেন এবং তার সাথে আরও একটি ছবি পোস্ট করেন । অপর ছবিটায় দেখা যাচ্ছে তার বান্ধবী পারমিতা সেনগুপ্ত মাথা ন্যাড়া করে ফেলেছেন।

ঐন্দ্রিলা জানিয়েছেন তার বান্ধবী পারমিতা এই দুঃসময়েঐন্দ্রিলার পাশে থেকে তাকে সাহস জোগানোর জন্যই নিজেও মাথা ন্যাড়া করে ফেলেছেন। ছবিটি পোস্ট করে ঐন্দ্রিলা লিখেছেন, “কিছু বন্ধুত্ব এমনও হয়। আমি ভাষা হারিয়ে ফেলেছি।”ছবিটি পোস্ট করার পরেই হাজার হাজার কমেন্ট শেয়ারে ভরে গিয়েছে। ঐন্দ্রিলার সমস্ত ভক্তরা বলছেন এমন বন্ধুত্ব সারাজীবন বেঁচে থাক।

 

Related Articles

Back to top button