নিউজপলিটিক্সরাজ্য

আবার বাংলায় কৈলাস বিজয়বর্গীয়। রাজ্যে নেওয়া হল তিন যাত্রার সিদ্ধান্ত।

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্যে বিজেপির ভরাডুবিতে যথেষ্ট হতাশ হয়েছিলেন বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা বাংলার মাটিতে প্রচারে এসে ২০০ টির বেশী সীট পাওয়ার কথা বলেছিলেন। সেখানে ৭৭ টি সীটেই বিজেপির জয়রথ আটকে গিয়েছিলো। বিজেপির এই ভরাডুবিতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের প্রতি বিস্তর ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন রাজ্য বিজেপি নেতারা।

তারপর থেকেই রাজ্যে পা রাখেননি বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। কিন্তু গতকাল মঙ্গলবার আবার রাজ্য বিজেপির নেতাদের সাথে বৈঠক করেছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়।জানা গিয়েছে বিজেপির বিশেষ পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় বাংলায় বিজেপির কর্মসূচির বেশিরভাগ দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন। ‌ কিন্তু বাংলায় বিজেপির ভরাডুবির পরে কৈলাস বিজয়বর্গীয়র দিকে যথেষ্ট আঙুল তুলেছে বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা। তারপরেই বাংলায় দলীয় কর্মসূচিতে কৈলাস কে সে ভাবে দেখা যায়নি।

আরও পড়ুন-বাদল অধিবেশনে লাগাতার বিক্ষোভের ফলে নাম না করে ডেরেক, শান্তনুকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী।

কিন্তু গতকাল আবার দলীয় কর্মসূচিতে হাজির হলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। দিল্লির কনস্টিটিউশন হলে রাজ্য বিজেপির নেতা নেত্রীরা বৈঠক করেছিলেন যাতে অংশগ্রহণ করেছিলেন কৈলাস। এই বৈঠকে অংশগ্রহণ করেছিলেন বিজেপি নেতা শিবপ্রকাশ এবং আইটি সেল প্রধান অমিত মালব্য। প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে এই বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন-“আমাদের ভয়ে কাঁপছে বিপ্লব দেব”- মন্তব্য তৃণমূল মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য্যের

বৈঠকে দুটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ‌ রাজ্যে তিনটি বড় যাত্রা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি । জানা গিয়েছে শহীদ পরিবারগুলোর সাথে বিজেপি বিধায়ক এবং সাংসদরা সাক্ষাৎ করবেন, সেই যাত্রা কোন পথে হবে তা এখনো কিছু ঘোষণা করা হয়নি। ‌ শাসকদলের হিংসাত্মক পরিস্থিতিকে রাজ্যবাসীর সম্মুখে উপস্থাপিত করাই হলো এই যাত্রার লক্ষ্য।

এমনিতেই ভোট-পরবর্তী হিংসাত্মক পরিস্থিতিতে প্রথম থেকেই যথেষ্ট সরব হয়ে রয়েছে রাজ্য বিজেপি। এই মর্মে বেশ কয়েকবার কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে অভিযোগ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী এবং দিলীপ ঘোষ।

Related Articles

Back to top button