নিউজপলিটিক্সবিনোদন

তৃণমূলে যোগদান করতেই মুকুলকে কটাক্ষ করলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

নিজস্ব প্রতিবেদন: টলিউডের অন্যতম অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র যাকে অনেকেই অভিহিত করেন টলিউডের কঙ্গনা রানাওয়াত হিসাবে । তার কারণ সত্যি কথা বলতে দুবার ভাবেন না তিনি। বাম মনস্ক এই অভিনেত্রী মুখের ওপর স্পষ্ট জবাব দিতে অত্যধিক স্বচ্ছন্দ বোধ করেন। বর্তমানে বিনোদন জগতের সঙ্গে ততটা যুক্ত নেই তিনি।

মীরাক্কেলের বিচারকের আসন থেকে বাদ পড়েছেন অনেক আগেই। টলিউডের মধ্যে চলা নেপোটিজম বিতর্কে তিনি মুখ খুলে বহু অভিনেতা অভিনেত্রী এবং পরিচালকদের বিরাগভাজন হয়েছিলেন। কিন্তু কিছুতেই দমে যাননি তিনি। নিজের দাবিতে অনড় ছিলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা।

আরও পড়ুন-শাহরুখ খানের সাথে মান্নাতে দেখা করলেন তৃণমূলের ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর। তুঙ্গে জল্পনা।

এবার মুকুল রায়ের বিজেপি ত্যাগের বিষয়টিকে কটাক্ষ করেছেন শ্রীলেখা। তবে তিনি এই কটাক্ষ করতে গিয়ে হাতিয়ার বানিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ নুসরতের একটি মন্তব্যকে। সম্প্রতি নিখিল জৈনের সাথে বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন নুসরত। তিনি বলেছেন যে তিনি নিখিলকে বিয়ে করেননি, তাঁরা নাকি লিভ ইন সম্পর্কে ছিলেন।

আরও পড়ুন-“মুকুল রায় চাণক্য নন তিনি হলেন মীরজাফর।”- এক সময় ‘রাজনৈতিক গুরু’ বলা মুকুলকে কটাক্ষ করলেন সৌমিত্র খাঁ।

এর পরেই নুসরতের বিরুদ্ধে একের পর এক ট্রোল ভেসে আসে সোশ্যাল মিডিয়ায়। নুসরতের সাথে নিখিলের বিয়ে বৈধ নাকি অবৈধ এই বিষয়টি নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই আবহে মুকুল রায়ের বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান দেওয়ার বিষয়ে বিস্তর কটাক্ষ করলেন শ্রীলেখা। গতকাল থেকেই বিজেপির নেতা নেত্রীরা বারবার সোশ্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষের তীর ছুঁড়ে দিচ্ছেন মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন-“গোয়ালের গরু দড়ি ছিঁড়ে পালিয়ে গিয়েছিল , আবার বাঁধা হয়েছে।”- মুকুল রায়ের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনে বললেন অনুব্রত মণ্ডল।

যেমন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ, বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিজেপি নেত্রী বৈশালী ডালমিয়া সহ অনেকেই মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন।বাম মনস্ক অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র একটি টুইট করে লিখেছেন,”বিজেপিতে আমি যোগদান করিনি।বিজেপির সাথে লিভ-ইন এ ছিলাম।তাই বিজেপি ছখড়ার প্রশ্ন‌ই ওঠেনা।ইতি মুকুল রায়”

অর্থাৎ তিনি নুসরতের মন্তব্যকে হাতিয়ার করে মুকুল রায়কে কটাক্ষ করলেন।

Related Articles

Back to top button