“মহামারি নিয়ম অমান্য করার জন্য মুখ্যসচিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ।”- আলাপন ইস্যুতে বললেন শুভেন্দু অধিকারী।

“মহামারি নিয়ম অমান্য করার জন্য মুখ্যসচিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ।”- আলাপন ইস্যুতে বললেন শুভেন্দু অধিকারী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে অব্যাহত রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্যের মধ্যে তরজা। গত ৩১ শে মে রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিল্লিতে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে। এই নির্দেশকে কেন্দ্র করে ব্যাপক দ্বৈরথ সৃষ্টি হয়েছিলো রাজ্য এবং কেন্দ্রের মধ্যে। কিন্তু আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় রিটায়ার নিয়েছেন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ্য উপদেষ্টা হিসাবে নিযুক্ত হয়েছেন। আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে শোকজ নোটিশ পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

ইয়াস পরবর্তী পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে কেন উপস্থিত হননি রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় তার জবাব জানতে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের আওতায় শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়েছে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে।এদিকে আলাপন ইস্যুতে সরব হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি টুইট করে বলেছেন, “আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় কি এই খবরটি জানেন যে তাঁকে আড়াল করার জন্য স্বর্গ মর্ত্য তোলপাড় করে ফেলা হচ্ছে?”

এছাড়াও শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন যে, “এই ভয়াবহ মহামারীর সময় , বিপর্যয় চলাকালীন চাকরির নিয়ম অমান্য করার জন্য মুখ্য সচিবের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার লক্ষ্যে তাঁর রাজ্যবাসীকে সাহায্য না করার আচরণের নিন্দা জানাচ্ছি। তৃণমূলের সবথেকে পছন্দের হবি হল করদাতাদের টাকা লুঠ করে নেওয়া। তাই প্রতিমাসে আড়াই লাখ টাকা বেতন দিয়ে এরকম মুখ্য সচিবকে আরামদায়ক পদে বসাতে পারেন।”শুভেন্দু অধিকারীর এই মন্তব্যের এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি তৃণমূল।