মুকুলের পরামর্শ অনুযায়ী উত্তরবঙ্গে সংগঠন মজবুত করতে রণনীতি সাজাচ্ছে তৃণমূল

মুকুলের পরামর্শ অনুযায়ী উত্তরবঙ্গে সংগঠন মজবুত করতে রণনীতি সাজাচ্ছে তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্য রাজনীতিতে উত্তরবঙ্গ কে ঘিরে যথেষ্ট টানাপোড়েনের সৃষ্টি হয়েছে। উনিশের লোকসভা ভোটে এবং একুশের বিধানসভা ভোটে উত্তরবঙ্গের মাটিতে যথেষ্ট বিধ্বস্ত হয়েছে তৃণমূল। উত্তরবঙ্গে বিজেপির রমরমা। উনিশের লোকসভা ভোটে দেখা গিয়েছিলো উত্তরবঙ্গের মোট ৮ টি আসনের মধ্যে সাতটিতেই জয়লাভ করেছে বিজেপি।

একুশের বিধানসভা ভোটেও উত্তরবঙ্গের মাটিতে ৪২ টি আসনের মধ্যে বিজেপি আধিপত্য বিস্তার করেছে ২৫ টি আসনে। কোচবিহারে ৯ টি আসনের মধ্যে ৭ টি আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি। শুধুমাত্র দুই দিনাজপুরে তৃণমূলে সীট এসেছে। তাই এবার উত্তরবঙ্গের বুকে সংগঠনকে মজবুত করার জন্য রণনীতি সাজাচ্ছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন-উত্তরবঙ্গকে ভেঙে আলাদা রাজ্যের দাবি করায় বিজেপি সাংসদ জন বারলার বিরুদ্ধে থানায় দায়ের হল এফ‌আইআর।

একুশের ভোটে বাংলায় ২১৩ টি সীট নিয়ে তৃতীয়বার ক্ষমতা দখল করেছে তৃণমূল। উত্তরবঙ্গের দলের সংগঠন জোরালো করার জন্য এবার তৃণমূলের চাণক্য মুকুল রায়কে কাজে লাগানোর উদ্দেশ্যে বদ্ধপরিকর তৃণমূল। কিছুদিন আগেই বিজেপি থেকে আবার তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করেছেন মুকুল রায়। এবার মুকুল রায়ের পরামর্শ অনুযায়ী উত্তরবঙ্গে নিজেদের সংসার সুদৃঢ় করতে চাইছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন-“অশান্তি পাকানোর চেষ্টা করছে বিজেপি, তাই পুনর্গণনার চেয়ে আদালতে যাচ্ছে।”- বিজেপি কে আক্রমণ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক আগে থেকেই উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের জন্য নানান কাজ করছেন। এদিকে আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বারলা উত্তরবঙ্গ কে আলাদা রাজ্য রূপে গঠন করার জোরালো দাবী তুলেছেন যার দরুন তার বিরুদ্ধে দিনহাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে তৃণমূল।উত্তরবঙ্গের মানুষের কাছে বিভিন্ন প্রকল্প পৌঁছে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উত্তরবঙ্গের শিক্ষাক্ষেত্রে যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে রাস্তাঘাটে সমস্ত কিছুতে উন্নয়নের জোয়ার নিয়ে আসার চেষ্টা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার উত্তরবঙ্গে বিজেপির রমরমা রুখতে মুকুল রায়ের পরামর্শমতো রণকৌশল সাজাচ্ছে তৃণমূল।